মহারাষ্ট্রে নিখোঁজ বর্ধমানের আদিবাসী যুবক, মুখ্যমন্ত্রী দ্বারস্থ যুবকের পরিবার

0
57

সন্তু দত্ত, বর্ধমান: মহারাষ্ট্রে কাজে গেলে পরিবারে সুদিন ফেরাতে পারবি । বছর ২১ বয়সী যুবক প্রশেনজিৎ হেমব্রমকে এমনই আশ্বাস দিয়ে মহারাষ্ট্রে নিয়েগিয়েছিল পরাণ কিসকু নামে এক ব্যক্তি ।

তার পর থেকে প্রায় পাঁচ মাস ধরে নিখোঁজ রয়েছে পূর্ব বর্ধমানের জামালপুর থানার মসাগ্রাম এর যুবক প্রশেনজিৎ । ঘটনার পর থেকে পরাণ কিসকু ও ধরাছোঁয়া  দিচ্ছে না বলে অভিযোগ করেছেন প্রশেনজিৎতের পরিবার ।

ছেলেকে ফিরে পেতে জেলা প্রশাসন ও জামালপুর থানায় লিখিত আবেদন জানানোর পাশাপাশি মুখ্যমন্ত্রীর দফতরেও চিঠি পাঠিয়েছে নিখোঁজ যুবকের বাবা রবি হেমব্রম । প্রশাসনের হস্তক্ষেপে হয়তো ছেলে বাড়ি ফিরবে এই প্রত্যাশা নিয়ে এখন পথ চেয়ে আছেন প্রশেনজিৎ এর বাবা মা ।

পুলিশ ও মুখ্যমন্ত্রীর দফতরে পাঠানো চিঠিতে যুবকের পরিবার জানিয়েছে , ক্ষেত মজুরি কাজ করেই তাঁদের পরিবারের সকলে দিন গুজরান করেন ।তাঁদের সংসারে অভাব অনটন নিত্য দিনের সঙ্গী ।

রবি হেমব্রম বলেন , সেকারণে দশম শ্রেণীতেই লেখাপড়ার পাঠ চুকিয়ে ফেলতে হয় তাঁর ছেলেকে । সংসারে অভাব অনটন লাঘবের জণ্য এরপর থেকেই তাঁর ছেলে বিভিন্ন জনকে একটা ভাল কাজ যোগাড় করেদেবার কথা বলতো ।

রবিবাবু বলেন, জামালপুরের কেরেলী গ্রাম নিবাসী পরাণ কিস্কু-র সঙ্গে তাঁর ছেলের পরিচয় হয় । এই পরাণ কিসকু তাঁর ছেলেকে আশ্বাস দিয়ে জানায় মহারাষ্ট্রে কাজ আছে । সেখানে কাজে গেলে পরিবারে সুদিন ফেরাতে পারবি । ছেলে সেকথা   বিশ্বাস করেছিল । ২০১৮ সালের ২৫ আগষ্ট প্রশেনজিৎকে সঙ্গে নিয়ে পরাণ মহারাষ্ট্র রওনা হয় । পরাণ  গোয়ার কাছে ভাস্কোদাগামা থানার অন্তর্গত আদাসিন এলাকায় প্রশেনজিৎকে নিয়ে গিয়ে রাখে । প্রশেনজিৎ বাড়িতে ফোন করে সকথা জানায় । মা সুন্দরী হেমব্রম বলেন ,মহারাষ্ট্রে পৌছানোর পর চার পাঁচ দিন প্রশেনজিৎ এর সঙ্গে ফোনে কথা হয়েছিল । তার পর থেকে ছেলের আর কোন খোঁজ নেই ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here