নিউজ ডেস্ক : দক্ষিণ২৪ পরগনা বাড়িতে বসে অবৈধ মদ বিক্রি করে ছেলে এবং বৌমা । ছেলে বৌমার জ্বালায় অতিষ্ঠ মা ।আর সেই মদ বিক্রির প্রতিবাদ করায়, প্রতিবাদী মাকে নূরা দিয়ে বেধড়ক মার, এখন গুরুতর আহত ওই বৃদ্ধা।

ঘটনাটি ঘটেছে , ক্যানিং থানার খাস কুমড়াখালী গ্রামে । আহতের নাম রত্না নস্কর (৬৫) পরিবার সূত্রে খবর , বাড়িতে বসে অবৈধ ভাবে মদ বিক্রি করে ছেলে ও বৌমা। আর বাড়িতে প্রায় সব সময় মাতাল লোকেদের আনাগোনা থাকে।আর তাদের জ্বালায় অতিষ্ঠ হয় বৃদ্ধা মা।

এরই প্রতিবাদ করায় মাকে ভাত দেওয়া বন্ধ করে দেয় ছেলে বাপি নস্কর। তাই নিজের দুমুঠো অন্ন জোগাড় করতে কলকাতায় সবজি ব্যবসা করতে বাধ্য হয় বৃদ্ধা মা। সারাদিন হাড়ভাঙা খাটনীর পরে সন্ধ্যায় ঘরে ফিরলেই দেখাযায় মাতাল লোকেদের আমদানি ও মাতলামি। সে কারণে বাড়িতে মদ বিক্রি বন্ধ করার জন্যে বারবার প্রতিবাদ করত মা । আজ বাড়িতে মদ বিক্রি বন্ধ করা নিয়ে প্রতিবাদ করতে গেলে ,নূরা দিয়ে প্রতিবাদী মাকে খুব জোরে আঘাত করে ছেলে বাপি নস্কর। মাকে মারার জন্যে ছেলে বাপি নস্কর কে সাহায্য করতে এগিয়ে আসে তার স্ত্রী সন্ধ্যা নস্কর । ছেলে ও বৌমার মারে গুরুতর আহত অবস্থায় ঘটনার স্থলেই লুঠিয়ে পড়ে বৃদ্ধা মা। গুরুতর আহত অবস্থায় বৃদ্ধা মাকে ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে আসে মেয়ে রুপা সর্দার ।

বর্তমানে ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালে চিকিৎসাধিন আহত বৃদ্ধা। এবিষয়ে ক্যানিং থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে বৃদ্ধার মেয়ের পক্ষ থেকে। মেয়ে রুপা সর্দার বলেন যেভাবে আমার মায়ের প্রতি দিনের পর দিন অন্যায় অত্যাচার করে আমার দাদা ও বৌদি তা আমি আর সহ্য করব না। আর ওরা বাড়িতে বসেই দু নম্বরী চোলাই মদের ব্যাবসা করতো, আমি পুলিশ কে সব জানিয়েছি এখন দেখি পুলিশ কি করে, আমি ওদের দুজনের প্রকৃত শাস্তি চাই স্থানীয় পুলিশ এ বিষয়ে তদন্ত শুরু করেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here