ম্যাকোর পর তুফানগঞ্জ থেকে রঞ্জিতে বাংলা দলে জায়গা পেল অনন্ত

0
59

 

নিজস্ব প্রতিনিধি : শিব শঙ্কর পালের (ম্যাকো) পর এবার রঞ্জি ট্রফিতে জায়গা করে নিল কোচবিহারের তুফানগঞ্জ মহকুমার এক ক্রিকেটার।

চিলাখানার বাসিন্দা ওই ক্রিকেটারের নাম অনন্ত সাহা। দ্রুত গতির বোলার হিসেবে রঞ্জিতে সুযোগ হয়েছে তাঁর। আগামী ৭ জানুয়ারি থেকে কলকাতায় পাঞ্জাবের বিরুদ্ধে মাঠে নামবে সে।

চরম দারিদ্রতার মধ্যে ক্রিকেট খেলে রঞ্জিতে জায়গা করে নিতে সক্ষম হয়েছে অনন্ত। চিলাখানা বাজারে বাবার ছোট্ট মুদির দোকান দিয়ে তাঁদের সংসার চলত। কিন্তু বছর পাঁচেক আগে বাবার মৃত্যুতে আরও সঙ্কটের মধ্যে পড়তে হয় তাঁদের। দুই ভাই ও তিন দিদির মধ্যে সবার ছোট অনন্ত।

এই চরম প্রতিকূলতার মধ্যেও পাড়ার ক্রিকেটে প্রতিভা দেখায় সে। তার প্রতিভা দেখে পাশে দাঁড়ান চিলাখানার বাসিন্দা উত্তম সাহা(পাপাই)। তিনিই তাঁকে খেলার জন্য ব্যাট, বল, জামা, জুতা থেকে শুরু করে খেলার সব সামগ্রী কিনে দিতেন। মহকুমা ও জেলা স্তরের বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় খেলে নিজের দক্ষতা দেখিয়েছেন। ফলে এক সময় শিব শঙ্কর পালের নজরে পড়ে অনন্ত। তাঁকে কোলকাতায় নিজের কোচিং ক্যাম্পে জায়গা করে দেন শিব শঙ্কর পাল। নিজে হাতে তাঁকে প্রশিক্ষন দিয়ে তৈরি করেন। সেখান থেকেই তিনি রঞ্জিতে জায়গা করে নিয়েছেন।
অনন্তের কথায়, “শুরুতে পাপাইদার সাহায্য না পেলে আজকে আমি এখানে আসতে পারতাম না। ব্যাট বল কেনার টাকা ছিল না। তিনিই আমাকে সব ব্যাবস্থা করে দিতেন।” পাশাপাশি রঞ্জিতে সুযোগ পাওয়ায় কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন সমীর চক্রবর্তী, তার কোচ শিব শঙ্কর পালকে। অনন্ত বলেন, “পাপাই দা, সমীর দা ও আমার কোচ শিব শঙ্কর পালের জন্য আজকে আমার রঞ্জিতে খেলার সুযোগ হচ্ছে। আমি আরও অনেক দূর এগোতে চাই। জাতীয় টিমে খেলা আমার মূল লক্ষ্য।”
কোচ শিব শঙ্কর পাল বলেন, “এটা খুব ভালো খবর যে আমার কোচিং ক্যাম্প থেকে রঞ্জি ট্রফিতে সুযোগ পেয়েছে। ওকে ওর ফোকাস ঠিক রাখতে হবে। এটা শুরু তাঁকে আরও আনেক এগিয়ে যেতে হবে। আরও বেশি করে পরিশ্রম করতে হবে।” অনন্তের পাশাপাশি কে.সি. নাইডু কাপে আন্ডার ২৩ এ অলরাউন্ডার হিসেবে খেলতে সৌরাষ্ট্র যাচ্ছে তুফানগঞ্জের সোভম সরকার। তার বাড়ি তুফানগঞ্জের বিধানপল্লি এলাকায়। সোভমোও শিব শঙ্কর পালের কলকাতার কোচিং ক্যাম্প থেকে উঠে এসেছে।
একসময় তুফানগঞ্জ থেকে উঠেছিলেন শিব শঙ্কর পাল। যিনি ম্যাকো নামে পরিচিত। রঞ্জি থেকে জাতীয় দলে ঢোকারও সুযোগ হয়েছিল তাঁর। এখন তাঁর হাট ধরে তুফানগঞ্জ থেকে একের পর এক ক্রিকেটার উঠে আসায় খুশি সেখানকার বাসিন্দারা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here