আজ ২২ জুলাই # আমাদের দেশ ভারতবর্ষের জাতীয় পতাকার জন্মদিন # বেঙ্গল ওয়াচের জন্য কলম ধরলেন বিশিষ্ট সাংবাদিক শ্যামলেন্দু মিত্র

0
14

# বেঙ্গল ওয়াচের জন্য কলম ধরলেন বিশিষ্ট সাংবাদিক শ্যামলেন্দু মিত্র #

আজ  আমাদের দেশ ভারতবর্ষের জাতীয় পতাকার জন্মদিন।

১৯৪৭ সালের ২২ জুলাই দেশের বর্তমান জাতীয় পতাকা ভারতীয় গণ পরিষদে গৃহীত হয়।

ওপরে গেরুয়া, মাঝে সাদা এবং নীচে সবুজ।

ঠিক মাঝখানে গাঢ় নীল রঙের অশোক চক্র।

দেশের জাতীয়  পতাকা প্রত্যেক ভারতবাসীর গর্ব।

১৯৪৭ সালের ২২ জুলাই গণ পরিষদে গৃহীত হওয়ার পর এটি ডোমিনিয়ন অফ ইন্ডিয়ার অফিসিয়াল ফ্ল্যাগ হিসেবে চিহ্নিত হয়।

ভারতীয় গণতন্ত্রের প্রতিভূর মর্যাদা পায় এই ত্রিবর্ণরঞ্জিত  জাতীয় পতাকা।

স্বাধীনতার আগে ভারতের জাতীয় কংগ্রেস স্বরাজ ফ্ল্যাগ হিসেবে যে পতাকা ব্যবহার করতো, অনেকটা সেইরকমই দেখতে আমাদের জাতীয় পতাকা।

ইন্ডিয়ান ন্যাশনাল কংগ্রেসের স্বরাজ ফ্ল্যাগটি ডিজাইন করেছিলেন পিংগলি ভেংকাইয়া।

১৯৪৭ সালের ১৫ অগস্ট স্বাধীন ভারতে প্রথমবার  জাতীয় পতাকাটি উত্তোলিত হয়।

আইনত কেবলমাত্র খাদির কাপড় দিয়েই জাতীয় পতাকা প্রস্তুত করার নিয়ম ।

জাতীয় পতাকার মাপ ও তার বৈশিষ্ট্য নির্দিষ্ট করে দিয়েছে ব্যুরো অফ ইন্ডিয়ান স্ট্যান্ডার্ডস।

একমাত্র খাদি উন্নয়ন ও গ্রামীণ শিল্প কমিশনের হাতে জাতীয় পতাকা তৈরির অধিকার রয়েছে।

তারাই আঞ্চলিক সংস্থাগুলিকে জাতীয় পতাকা তৈরির দায়িত্ব দিয়ে থাকে।

২০০৯ সালের তথ্য অনুযায়ী, কর্ণাটক খাদি গ্রামোদ্যোগ সংযুক্ত সংঘ জাতীয় পতাকার একমাত্র উৎপাদক।

জাতীয় পতাকার ব্যবহারের নির্দিষ্ট নিয়ম কানুন রয়েছে।

জাতীয় পতাকা ব্যবহারের বিধি ভারতীয় পতাকাবিধি ও জাতীয় প্রতীকাদি সংক্রান্ত অন্যান্য আইন অনুসারে নিয়ন্ত্রিত হয়।

আগে স্বাধীনতা দিবস, সাধারণতন্ত্র দিবস সহ অন্যান্য জাতীয় দিবস ছাড়া সাধারণ নাগরিকেরা পতাকা উত্তোলন করতে পারতেন না।

২০০২ সালে শিল্পপতি নবীন জিন্দলের আবেদনের ভিত্তিতে সুপ্রিম কোর্ট সাধারণ নাগরিকদের জাতীয় পতাকা অন্যান্য দিনেও ব্যবহারের অনুমতি দেয়।

এখন প্রতিদিনই নিয়ম মেনে প্রতি বাড়ি ও কার্যালয়ে যে কোনও ভারতীয়  নাগরিক জাতীয় পতাকা উত্তোলন করতে পারেন।

এর জন্য কেন্দ্রীয় সরকারকে পতাকাবিধি সংস্কারের নির্দেশ দেয় শীর্ষ আদালত।

২০০৫ সালে পতাকাবিধি ফের সংশোধন করা হয়।

আগে কোনওরকম পোশাকে জাতীয় পতাকার ছবি ব্যবহার নিষিদ্ধ ছিল ।

২০০৫ সালে পতাকা বিধি সংশোধনের পর কোমরের ওপরের অংশে পরিধেয় বস্ত্রে জাতীয় পতাকা ব্যবহারের অনুমতি দেওয়া হয়।

সরকারি বিধিতে বলা হয়েছে………..

১) জাতীয় পতাকা কখনোই মাটি বা জল স্পর্শ করবে না।

২) জাতীয় পতাকাকে টেবিলক্লথ হিসেবে বা কোনও প্ল্যাটফর্মের আচ্ছাদন হিসেবে ব্যবহার করা চলবে না।

৩) জাতীয় পতাকা দিয়ে কোনও মূর্তি ও শিলান্যাস প্রস্তর ঢাকা দেওয়া যাবে না।

৪) জাতীয় পতাকা কখনই উল্টো অবস্থায়  উত্তোলন করা যাবে না।

৫) সূর্যাস্তের পরে জাতীয় পতাকা উত্তোলিত অবস্থায় রাখা যাবে না।

৬) সূর্যাস্তের সঙ্গে সঙ্গে জাতীয় পতাকা নামিয়ে নিতে হবে।

৭) পরের দিন সূর্যোদয়ের পর আবার জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা যাবে।

৮) রাষ্ট্রীয় শোকপালন কালে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখার নিয়ম।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here