শান্তিপুর কলেজে ছাদে পরীক্ষা দিল পরীক্ষার্থীরা, অধ্যক্ষা নির্বিকার

0
302

নিজস্ব প্রতিনিধি, নদীয়া:- কয়েকদিন আগে শুরু হয়েছে কলেজের ফার্স্ট ইয়ারের পরীক্ষা। রানাঘাট কলেজের পড়ুয়াদের সিট পড়েছে শান্তিপুর কলেজে।

পরীক্ষার্থীদের সংখ্যা দু’হাজর সাতশ জনের মতো। গতকাল ছিল ইংরেজি কম্পালসরি পেপারের পরীক্ষা। এতজন পরীক্ষার্থীর বসার পরিকাঠামো নেই শান্তিপুর কলেজে।

তাই চেয়ার, টেবিল ভাড়া করে কলেজের ছাদে খোলা আকাশের নিচে পরীক্ষার আয়োজন করে কর্তৃপক্ষ। উঠেছে গণ টোকাটুকির অভিযোগও।

শান্তিপুর কলেজের অধ্যক্ষা চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য বলেন, “বিষয়টি আগে থেকেই কল্যাণী বিশ্ববিদ্যালয়কে জানানো ছিল।

তাঁদের তত্ত্বাবধানেই এই ব্যবস্থা করা হয়েছে।” তবে গণটোকাটুকির অভিযোগ অস্বাকীর করেছেন তিনি। বলেন, “খুব ভালো ব্যবস্থার মধ্য দিয়ে পরীক্ষা দিয়েছে ছাত্র, ছাত্রীরা।” এদিকে বিশ্ববিদ্যালয়কে জানানো নিয়ে চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য্যর বক্তব্য অস্বীকার করছেন কল্যাণী বিশ্ববিদ্যালয়ের ডেপুটি অ্যাসিস্ট্যান্ট কন্ট্রোলার সুকান্ত মজুমদার। তিনি বলেন, “শান্তিপুর কলেজের প্রিন্সিপাল চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য এবিষয়ে আমাদের সঙ্গে কোনও আলোচনা করেননি।

আমরা কোনও মতেই খোলা ছাদে নিয়ম ভেঙে কোনও ছাত্র-ছাত্রীকে পরীক্ষা দেওয়ার অনুমতি দিতে পারি না।”
শান্তিপুর কলেজে এখন কোনও গভর্নিং বডি নেই। তাই বর্তমানে সাব ডিভিশনাল অফিসারের তত্ত্বাবধানে চলে শান্তিপুর কলেজ। রানাঘাটের SDO মণীশ ভার্মা বলেন, “পরীক্ষার বিষয়ে আমাকে কিছুই জানানো হয়নি। তদন্ত করা হবে।”

এর আগে পরীক্ষার্থীর সংখ্যা বেশি থাকায় শান্তিপুরের স্কুলগুলিতে কলেজের পরীক্ষা হয়েছিল। এবারও হতে পারত বলে অনেকে বলছেন। এর পিছনে উঠছে সরকারি টাকা নয়ছয়ের অভিযোগ। কলেজের শিক্ষকদের একাংশের অভিযোগ, স্কুলগুলিতে পরীক্ষার আয়োজন করলে কোনও খরচ হত না। কিন্তু, কলেজের ছাদে পরীক্ষার আয়োজন করার ফলে টেবিল, চেয়ার ভাড়া করা নিয়ে সরকারি টাকা নয়ছয়ের সুবিধা হবে বলেই এই ব্যবস্থা করা হয়ছে । সূত্রের খবর, এই বিষয়ে তদন্ত শুরু করেছে নদীয়া জেলা প্রশাসন ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here