আত্মঘাতী সংযুক্ত মোর্চায় বাম-কংগ্রেস হারিয়ে গেল # সংখ্যালঘুরা আঁকড়ে ধরল তৃণমূলকে # শক্তিশালী বিরোধী হিসেবে উঠে এল বিজেপি # বেঙ্গল ওয়াচের জন্য কলম ধরলেন বিশিষ্ট সাংবাদিক শ্যামলেন্দু মিত্র

0
96

# বেঙ্গল ওয়াচের জন্য কলম ধরলেন বিশিষ্ট সাংবাদিক শ্যামলেন্দু মিত্র #

 

রাজনীতিতে নীতিভ্রষ্ট হলে মানুষ মুখ ফিরিয়ে নেয়।

 

আপাত লাভ অনেক সময় দীর্ঘমেয়াদে পায়ের তলা থেকে সরে যায়।

এভাবে অনেক বড় দল সাইনবোর্ডে পরিণত।

এবারের সংযুক্ত মোর্চার শরিক তিন দলের তাই অবস্থা।

বামেরা মূলত সিপিএম তরুণ ব্রিগ্রেডকে নামিয়েও মুখ রক্ষা করতে পারেনি।

কংগ্রেসেরও একই অবস্থা।

এই দুই দল শূন্য হাতে ফেরেছে।

জোটের নব্য শরিক আইএসএফ ১ টি সিট পেয়েছে। তাতে তাদের মুখ রক্ষা হয়েছে কিনা তা তারাই বলতে পারবে।

কার্যত সংযুক্ত মোর্চা আত্মঘাতী জোট।

মানুষ এদের বিশ্বাস করেনি।

মুসলমান ভোটের তাগিদে আব্বাস সিদ্দিকিদের জামাই আদর করতে গিয়ে আমও গেল ছালাও গেল।

আব্বাসকে বিজেপির বিটিম হিসেবে চিহ্ণিত করে মুসলমান ভোটের সিংহ ভাগ চলে গেছে তৃণমূলের বাক্সে।

বিজেপির ভয়ে ভীত হয়ে মালদা মুর্শিদাবাদে কংগ্রেসের মুসলমান ভোট ব্যাঙ্কের পুরোটাই চলে গেছে তৃণমূলের বাক্সে।

১৯৭২ সালে বাম দল সিপিআই হাত ধরেছিল কংগ্রেসের।

সিপিএম দেওয়াল লিখেছিল, দিল্লি থেকে এল গাই সঙ্গে সিপিআই।

কয়েকটা সিট সিপিআই পেয়েছিল কংগ্রেস জোটের শরিক হয়ে। সরকারেও যায়।

বরানগরে জ্যোতি বসু হেরে যান সিপিআইয়ের শিবপদ ভট্টাচার্যের কাছে।

ব্যপক রিগিংয়ের অভিযোগ তুলে দুপুরের মধ্যে সব বুথ থেকে পোলিং এজেন্ট তুলে নেয় সিপিএম।

সিপিএম তথা বামেরা ৫ বছর বিধানসভা বয়কট করে।

১৯৭৭ সালের ভোটে কংগ্রেসকে পরাস্ত করে সিপিএম তথা বামেরা ক্ষমতা দখল করে।

পরে সিপিআই তাদের ভুল স্বীকার করে বামফ্রন্টের শরিক হয়।

কিন্তু কার্যত বাম স্লট থেকে হারিয়ে যায় সিপিআই।

আপাত লাভের আশায় তৃণমূলের সঙ্গে হাত মিলিয়েছিল আর এক বাম দল এসইউসি। একজন সাংসদ পায়।

পরে তৃণমূলের হাত ছেড়ে দিলেও মানুষ আর তাদের বিশ্বাস করে না।

তৃণমূল একবার বিজেপির সঙ্গে কেন্দ্রে সরকারে গিয়ে তাদের জাত-ধর্ম বিসর্জন দিয়েছিল।

তার ফল ভুগতে হলেও তৃণমূল ম্যানেজ করে নেয় পরবর্তী সময়ে।

কেননা বাংলায় বিজেপির প্রভাব ছিল না সেই সময়ে।

তৃণমূলের মূল লড়াই ছিল সিপিএম তথা বামেদের সঙ্গে।

আজকের পরিস্থিতি ভিন্ন।

বাংলায় বাম-কংগ্রেস শূন্য।

বিজেপি হেরে গিয়েও আদতে জিতে গেছে।

বিরাট শক্তিধর বিরোধী হিসেবে বাংলায় বিজেপির আত্মপ্রকাশ।

# তৃণমূল ২১৩ সিট পেয়েছে ।
২ কোটি ৮৬ লাখ ভোট পেয়েছে তৃণমূল। (৪৭%)

# বিজেপি ৭৭ সিট পেয়েছে।।বিজেপি পেয়েছে ২ কোটি ২৮ লাখ ভোট পেয়েছে। (৩৮%)

# সংযুক্ত মোর্চা ১ টি সিট পেয়েছে (৮%)।

# অন্যান্য ১ টি সিট পেয়েছে (৫%)।

# নোটায় গেছে ২% ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here