ভারতের জিডিপি ২০০ লক্ষ কোটি টাকা # আর দেশের ৫১ কোটি মানুষের ভ্যাকসিনের খরচ ৭০ হাজার কোটি টাকা # সরকার তা করলেই করোনা রোখা যাবে # ডা. দেবী শেঠির মূল্যবান প্রস্তাব # বেঙ্গল ওয়াচের জন্য কলম ধরলেন বিশিষ্ট সাংবাদিক শ্যামলেন্দু মিত্র

0
36

# বেঙ্গল ওয়াচের জন্য কলম ধরলেন বিশিষ্ট সাংবাদিক শ্যামলেন্দু মিত্র #

ভারতের জিডিপি ২০০ লক্ষ কোটি টাকা।

আর ভারতের ৫১ কোটি মানুষের জন্য ভ্যাকসিনের জন্য খরচ পড়বে ৭০ হাজার কোটি টাকা।

শুধু দরকার মানসিকতা।

দিল্লিতে নতুন সংসদ ভবনও প্রধানমন্ত্রী আবাস এবং মিউজিয়ামের জন্য খরচ করা হচ্ছে ২০,০০০ কোটি।

এই খরচের এখনই প্রয়োজন নেই বলে অনেকেই প্রশ্ন তুলেছেন।

কারণ সংসদ ভবন ও প্রধানমন্ত্রী আবাস ভেঙে পড়ার মতো অবস্থা হয়নি।

ভারতের অতিমারি পরিস্থিতি রোখার উপায় বাতলেছেন বিশিষ্ট চিকিৎসক দেবী শেঠি…………..

১) দেশের ১৩০ কোটি জনসংখ্যার মধ্যে ৫১ কোটিকে ভ্যাকসিন দিতে পারলেই করোনা অতিমারিকে ঠেকানো সম্ভব।

২) তার জন্য অর্থের যোগান দিতে হবে কেন্দ্রীয় সরকারকেই।

৩) করোনার জেরে উদ্ভুত অতিমারিতে দেশের স্বাস্থ্য ব্যবস্থার করুণ চিত্র প্রকট ভাবে ধরা পড়ছে।

৪) এমন পরিস্থিতিতে আমেরিকার স্বাস্থ্য উপদেষ্টা অ্যান্টনি ফসি সহ বিশ্বের তাবড় চিকিৎসকরা সার্বিক ভ্যাক্সিনের উপর জোর দিয়েছেন।

সুপ্রিম কোর্ট নিযুক্ত করোনা টাস্কফোর্সের সদস্য দেবী শেঠির সোজাসুজি বক্তব্য…………….

১) ভারতীয় দৃষ্টিভঙ্গি দিয়ে দেখলেও অতিমারি রোখা অসাধ্য নয়।

২) এখনও পর্যন্ত ভ্যাক্সিনই সেরা ও সস্তার সমাধান।

৩) যত দ্রুত সম্ভব ১৮ বছরের ঊর্ধ্বে সকলের টিকাকরণ সম্পূর্ণ করে ফেলা দরকার।

৪) তৃতীয় পর্যায়ে ১৮ বছরের ঊর্ধ্বে সকলের টিকাকরণে ইতিমধ্যেই সায় দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার।

৫) কিন্তু টিকার পর্যাপ্ত জোগান না থাকায় তা শুরুই হয়নি একাধিক রাজ্যে।

৬) বুঝতে হবে ভারত বিশাল জনসংখ্যার দেশ।

৭) কিন্তু প্রয়োজনীয় সম্পদ রয়েছে আমাদের কাছে।

৮) একদিন লকডাউন করলেই ১০,০০০ কোটি টাকার ক্ষতি হয় আমাদের।

৯) টিকাকরণে জোর দিলে ক্ষতির মুখে পড়তেই হবে না।

১০) ১৮ বছরের কম বয়সিরা এখনও পর্যন্ত ভ্যাক্সিনেশনের বাইরেই রয়েছে।

১১) তাই ভ্যাক্সিনেশন পরিকল্পনায় মোট জনসংখ্যা থেকে আপাতত তাদের বাদ রাখা যেতে পারে।

১৩) ফার্স্ট ডোজ ধরলে ইতিমধ্যে ১৩ কোটি মানুষ ভ্যাক্সিন পেয়েছেন।

১৪) সে ক্ষেত্রে আপাতত ৫১ কোটি মানুষের সম্পূর্ণ ভ্যাক্সিনেশনের লক্ষ্য নিয়ে নামতে হবে।

দেশে মোট সংক্রমণ আড়াই কোটি ছুঁইছুঁই হলেও টিকা নিয়ে গবেষণা এবং টিকা উৎপাদনে কোনও টাকাই বরাদ্দ করা হয়নি বলে সম্প্রতি সুপ্রিম কোর্টে জানিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার।

কিন্তু অতিমারি রুখতে হলে সরকারকে টাকা খরচ করতেই হবে বলে মত দেবী শেঠি……..

১) ৫১ কোটি মানুষকে দু’টি টিকা দিতে সবমিলিয়ে ৭০ হাজার কোটি টাকা খরচ পড়বে।

২) অগ্রিম ১০ হাজার কোটি টাকা দিয়ে টিকা উৎপাদনকারী কোনও সংস্থার সঙ্গে চুক্তি করাই যায়।

৩) তা হলে টিকা উৎপাদনে আরও জোর দেবে তারা।

৪) ভারতের মতো দেশ, যার বার্ষিক গড় উৎপাদন ২০০ লক্ষ কোটি টাকা, সেখানে ৭০ হাজার কোটি টাকা কোনও ব্যাপারই নয়।

৫) পরীক্ষায় সফল যে কোনও ভ্যাক্সিন উৎপাদনকারী সংস্থার সঙ্গেই এই চুক্তি করা যায়। তাদের সঙ্গে দরদামও করতে পারে সরকার।

৬) সে ক্ষেত্রে ২ থেকে ৩ মাসের মধ্যে ৫১ কোটি মানুষের ভ্যাক্সিনেশন সম্পূর্ণ হওয়া সম্ভব।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here