দিলীপ সিংহ রায় : পৌরসভা নির্বাচনের প্রাক্কালে বহরমপুর পৌরসভা !! জেলার রাজনৈতিক পর্যবেক্ষক মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী মহাশয়ের পর্যালোচনা করা দরকার !! পশ্চিমবঙ্গে পৌরসভার নির্বাচনের বাজনা বাজতে চলেছে !! আগামী ফেব্রুয়ারিতে পশ্চিমবঙ্গের সমস্ত পৌরসভার নির্বাচন হতে চলেছে, সাথে সাথে মুর্শিদাবাদ জেলার বহরমপুর পৌরসভা সহ আরো বেশ কয়েকটি পৌরসভার নির্বাচন আগামী ফেব্রুয়ারিতে হবে !! বহরমপুর নির্বাচন নিয়ে আলোচনার কিছু অবকাশ আছে বলে অন্তত আমি মনে করিনা !!

তবুও একটা পরিসংখ্যান তুলে ধরা প্রয়োজন !! ২০১৩ সালে আমার নেতৃত্বে তৃণমূল কংগ্রেস বহরমপুর পৌরসভার প্রথম নির্বাচনে লড়াই করে !! তখন না ছিল কোনো সংগঠন, না ছিল টাকা পয়সা, না ছিল স্করপিও গাড়ি ?? লড়াইটা ছিল বিশাল শক্তিধর অধীর চৌধুরীর কংগ্রেসের বিরুদ্ধে ভীষন অসম লড়াই ? জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মানুষের ভালোবাসাকে মুলধন করে আন্দোলনকে পাথেয় করে ঝুঁকিপূর্ণ লড়াই করে বহরমপুর পৌরসভার ২৮ টি ওয়ার্ডের মধ্যে ২৪ ওয়ার্ডে দ্বিতীয় পজিশন এবং ২টি ওয়ার্ডে জয় লাভ করি !! বহরমপুর পৌরসভায় ৭৬,০০০ ভোটের মধ্যে ২৯,৫০০ ভোট তৃণমূল কংগ্রেসের পকেটে নিয়ে আসতে পেরেছিলাম !!

পরবর্তীতে ২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে সেলিব্রিটি কমরেড ইন্দ্রনীল সেন লোকসভায় তৃনমূলের প্রার্থী হয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে !! ঐ নির্বাচনে উনি পুরোনো দিনের সমস্ত কর্মীদের বাদ দিয়ে নিজে নিজে কিছু অধীর চৌধুরীর ছেলেদের দিয়ে ভোট করিয়ে ভেবেছিলেন জিতে যাবো ?? কিন্তু ভোটের ফলাফল চরম থেকে চরমতম খারাপ হয় !! ভোটের ফলাফলে দেখা যায়, বহরমপুর পৌরসভার তৃণমূলের নিজস্ব ২৯,০০০ ভোট কমে ১৭,০০০ভোট দাড়ায় !! ওখান থেকেই বহরমপুর শহরে ভোট কমা শুরু !!

পরবর্তীতে ২০১৯ শের লোকসভা নির্বাচনে অঢেল টাকাপয়সা, অসংখ্য কর্মী, শাসক দলের হয়ে সরকারি প্রশাসনের মদত সত্ত্বেও ঐ ভোট কমে ৭০০০ এ দাঁড়ায়, শুধু তাইই নয় বহরমপুর পৌরসভার প্রতিটি ওয়ার্ডে তৃণমূল কংগ্রেস দ্বিতীয় স্থান থেকে চতুর্থ স্থানে চলে যায় !!
এর পরেও পুরোনো দিনের কর্মীদের ছেড়ে নব্য অতিনব্য তৎকাল প্যারাসুট তৃণমূলীদের উপর অগাধ বিশ্বাস ??

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here