বেঙ্গল ওয়াচ ডেস্ক ::এখন টলিউডের অন্যতম মুখ মিমি চক্রবর্তী।মিমির উত্থান প্রায় ঝড়ের গতিতে।টিভি সিরিয়াল থেকে টলিউড আর সেখান থেকে রাজনীতি – শাসক দলের রাজনীতি।

 

 

মিমি সম্পর্কে টলিউডে গুঞ্জন যে মিমি খুব নাকউঁচু মানুষ।প্রচুর পারিশ্রমিক চান।তবে মিমি তা নিয়ে ভাবিত না।
সম্প্রতি মুক্তি পেয়েছে তাঁর নতুন ছবি ‘খেলা যখন’। অরিন্দম শীল পরিচালিত এই থ্রিলারের মুখ্য চরিত্রে মিমি। বক্স অফিসের হিসেবনিকেশ কতটা ভাবাচ্ছে তাঁকে? শত ব্যস্ততার মধ্যে মিমি জানান,এক সময় তিনি বছরে ৩/৪ টে ছবিও করেছেন।কিন্তু এখন তিনি দেখে শুনে ছবি করেন।চিত্রনাট্য পছন্দ না হলে সোজা বলে দেন – ‘না।’তিনি আরো বলেন,সুদবু চিত্রনাট্য নয় , ভালো চিত্রনাট্যের সঙ্গে তাঁর চাই ভালো প্যাকেজ।অর্থাৎ কোনো হাউজ থেকে প্রকাশ পাবে,তদের মার্কেটিংয়ের ক্ষমতা কতটা ও সর্বপরি তারা কতটা পরিশ্রমিম দিতে পারবে।সব বিবেচনা করেই এখন মিমি ছবি করেন।
সম্প্রতি মিমির একাধিক ছবি বক্স অফিসে তেমন সাফল্য পায় নি।এই প্রসঙ্গে তিনি বলেন,খুব খারাপ লাগে।কিন্তু আমি তো নিজেকে উজাড় করে দেওয়ার চেষ্টা করি।তবে ভাগ্য বলেও একটা কথা আছে।
মিমি একটু উৎফুল্ল হয়ে বলেন,অরিন্দম দার দারুন থ্রিলার ‘খেলা যখন’ এর মুখ্য ভূমিকায় তিনি আছেন। তিনি বলেন,আমিও অভিনেত্রী হিসেবে আমার সবটা দিয়েছি। চেষ্টা করেছি ঊর্মির চরিত্রটিকে বিশ্বাসযোগ্য করে তোলার। আমার হাতে আর কিছু নেই। আমি তো চাই-ই, আমার ছবি ব্লকবাস্টার হোক। কিন্তু বক্স অফিসে কী হবে, সেটা তো নিশ্চিত ভাবে বলা সম্ভব নয়। বড় বড় বলিউড ছবিও ফ্লপ করে যাচ্ছে। এটুকু বলতে পারি, আমরা খুব ভাল একটি ছবি করেছি। ‘খেলা যখন’ নিয়ে আমি আশাবাদী।
জীবনে আমি শুধু অভিনয় নয়,রাজনীতিও করতে চাই।
নিজেকে একটা গণ্ডিতে কখনও আবদ্ধ রাখতে চাইনি। তাই জলপাইগুড়ি থেকে পালিয়ে এসেছিলাম। কাজকে সব সময় গুরুত্ব দিয়েছি। অভাবনীয় পরিশ্রম করেছি। দেখতে দেখতে ১৩ বছর পার করে ফেললাম। এতগুলো বছরে প্রচুর সাফল্য দেখেছি। আবার ব্যর্থতাও এসেছে, মনও ভেঙেছে। আর এ সব কিছু থেকেই আমি একটু একটু করে জীবনকে সাজিয়ে নিতে শিখেছি। এক সময়ে আমি অবসাদে ভুগতাম। তখন কয়েকজন ছাড়া আমার পাশে কেউ ছিল না। সেই অন্ধকার সময়টা কাটিয়ে উঠেছি। ভাল আছি। আমি যা পেয়েছি, তা অনেক। তাই না-পাওয়া নিয়ে ভাবি না। জীবনে কোনও আফসোসও নেই।
এভাবেই মিমির একপট স্বীকারোক্তি নাগরিক মহলকে বেশ আনন্দ দিয়েছে।তাই বলা যায় মিমি আছে মিমিতেই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here