বেঙ্গল ওয়াচ ডেস্ক ::নারী সমাজের অতিস্বাধীনতা নিয়ে ঔপন্যাসিক চেতন ভগৎ সম্প্রতি এক আলোচনায় ফ্যাশনিস্তা উরফি জাভেদ সম্পর্কে কুৎসিত মন্তব্য ঘিরে অভিনয় জগতে শোরগোল পরে যায়।

 

চেতনা ভগৎ বলেন,

এখনকার যুবসমাজ শুধু মেয়েদের ছবিতে লাইক দিতে জানে। তাই উরফি জাভেদের ছবিতে কোটি কোটি লাইক পড়ে।” তিনি এও বলেন,”এক দিকে সীমান্তে জওয়ানরা কার্গিলে বসে দেশকে রক্ষাকে করছেন। অন্য দিকে, আর এক দল কম্বলের তলায় ঢুকে উরফির ছবি দেখছে।’’ এই মন্তব্যকে অবমাননাকর বলে কটাক্ষ করেছেন উরফি। দাবি, তাঁকে কেন এর মধ্যে টেনে আনা হল?
এই কথার পরে সকলেই উরফির প্রকৃত প্রতিক্রিয়ার জন্য অপেক্ষা করছিল।প্রথমে বেশ হালকা সুরে উরফি সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রতিক্রিয়া দেয়, মিটু আন্দোলনের সময় চেতনের বিরুদ্ধে মহিলা হেনস্থার অভিযোগ আনা একের পর এক স্ক্রিনশট নিজের ইনস্টাগ্রাম শেয়ার করেন। তারপর উরফি বলেন,”ওঁর মতো মানুষ সব সময় মেয়েদের দোষই খোঁজেন। এক জন নারীকে তাঁর পোশাক দিয়েই বিচার করেন। আপনি বিকৃতমনস্ক বলে এমন নয় যে, মেয়েটার দোষ রয়েছে।
শনিবার উরফি প্রকাশ করলেন,তাকে করা চেতনের মেসেজ।তিনি লেখেন,চেতন তাকে মেসেজ করে জানিয়েছিল,তুমি আমার হাফ গার্লফ্রেন্ড হবে।তারপরেই উরফি বলেন,তাঁর দাম্পত্যজীবনে হতাশা নেমেছে বলেও দাবি করেন ‘ফ্যাশনিস্তা’। উরফিকে দিনের পর দিন অন্তরঙ্গ বার্তার প্রলোভন দেখাতেন চেতন, এমনটাই দেখা যায় সেই মেসেজে।
শনিবার, চেতনকে লক্ষ্য করে উরফি লেখেন, ‘বন্ধুরা, ভুলে যাবেন না, ‘মিটু’ কাণ্ড চলাকালীন কত মহিলা তাঁর নামে অভিযোগ করেছিলেন।’ তিনি এক সংবাদসংস্থার নিবন্ধও শেয়ার করেছেন, যেখানে বলা হয়েছিল, ‘MeToo আন্দোলনের সময়ে চেতনের হোয়াটসঅ্যাপ বার্তার স্ক্রিনশট ভাইরাল হওয়ার পরে চেতন ভগত ক্ষমা চেয়েছেন’তবে এখানে শেষ নয়, উরফি এর সঙ্গে লিখেছেন, ‘ওঁর মতো পুরুষরা নিজেদের ত্রুটি স্বীকার করার পরিবর্তে সর্বদা মহিলাদের দোষ দেবেন।’ উরফি এর সঙ্গে চেতন সম্পর্কে ‘বিকৃত মনের’ বলেও দাবি করেছেন।
চেতন ভগতের হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজের ফাঁস হওয়া স্ক্রিনশট শেয়ার করে উরফি আরও বলেন, ‘ধর্ষণ সংস্কৃতি প্রচার করা বন্ধ করুন, আপনি অসুস্থ। পুরুষদের আচরণের জন্য মহিলাদের পোশাককে দায়ী করা ব্যক্তি চেতন ভগত।’ এর পরে তিনি লেখেন, ‘বিপরীত লিঙ্গকে দোষারোপ না করে, নিজের দোষ স্বীকার করুন। আমি নই, আপনার মতো লোকেরা যুব সমাজকে বিভ্রান্ত করছে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here