নদীয়া সফরে এসে কল্পতরু মূখ্যমন্ত্রী, তীব্র আক্রমণ করলেন বিজেপি-কে

0
40

নিজস্ব প্রতিনিধি :নদীয়া:- দুদিনের নদীয়া সফরে এসে মূখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জ্জী দলের নেতৃত্ত্বকে হাড়ে হাড়ে বুঝিয়ে দিলেন যে একই দলে থেকে গোষ্ঠীবাজী করা যাবে না ।

রাণাঘাটে সফরের প্রথম দিনে প্রশাসনিক বৈঠকে স্পষ্টভাবে শান্তিপুরের বিধায়ক অরিন্দম ভট্ট্যাচার্য্য এবং পৌরপতি ও প্রাক্তন বিধায়ক অজয় দে-কে বলেন যে, যত শীঘ্র সম্ভব নিজেদের মধ্যে সব সমস্যা মিটিয়ে নিতে । শান্তিপুরের রাজনৈতিক অস্থিরতার কথা বিভিন্ন পত্রপত্রিকার শিরোনামে এবং গোষ্ঠীকোন্দলের বিষয়ে তিনি যে সবসময় রাফ্ এ্যন্ড টাফ্ এটাও তিনি জানিয়ে দেন ।

একইভাবে রাণাঘাটের বিধায়ক শংকর সিংহ এবং পার্থসারথী চ্যাটার্জ্জী, চাকদহের বিধায়িকা তথা সদ্যমন্ত্রীত্ত্ব পাওয়া রত্না ঘোষ (কর) এবং দীপক বসুর মধ্যে অন্তর্কলহ অবিলম্বে মিটিয়ে সকলকে নিয়ে চলতে বলেন ।

আগামীদিনে সকলের পাখির চোখ ২০১৯ এর লোকসভা ভোট এটাও বারংবার নদীয়ার সকল দলীয় নেতাদের মনে করিয়ে দেন । নাকাশীপাড়ার বিধায়ক কল্লোল্ খাঁ-কেও রীতিমতো ধমকদিয়ে সতর্ক করে দেন দলনেত্রী ।

এবারের নদীয়া সফরে মূখ্যমন্ত্রী যেন কল্পতরু । ৬০টির-ও বেশী উন্নয়ণমূলক প্রকল্পের উদ্বোধন করলেন । কন্যাশ্রী বিশ্ববিদ্যালয় কৃষ্ণনগরে হবে ঘোষনা করলেন তৎসহ জলতরঙ্গ ক্রীড়া প্রতিযোগীতায় অংশগ্রহনকারী খেলোয়াড়দের অপূ্র্ব দামী পুরস্কারে ভূষিত করলেন এছাড়াও তাঁদের মধ্যে অনেককে খেলোয়াড় কোটায় সিভিক্ ভলেন্টিয়ার-এর চাকরীতে সরাসরি নিযুক্ত করলেন ৷

বিজেপি-কে তীব্র আক্রমণ করলেন তৃণমূল নেত্রী তথা মূখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় । আয়ুস্মান ভারত প্রকল্প থেকে পশ্চিমবঙ্গকে সরিয়ে নিলেন তিনি । মূখ্যমন্ত্রীর কৃষ্ণনগরের সভায় কর্মীসমর্থকদের ভিড় ছিল রীতিমতো চোখে পড়ার মতো । নদীয়া জেলার দায়িত্ত্ব দেন অনুব্রত মন্ডলকে । সামনে ভোট আর নদীয়ার দুটি আসন রাণাঘাট ও কৃষ্ণনগর বিজেপি ছিনিয়ে নিতে পারে গোষ্ঠীদন্ধের কারণে তাই ড্যামেজ কন্ট্রোলের দায়িত্ত্ব দিলেন অনুব্রতকে এমনটাই ধারণা বিভিন্ন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞের । এখন দেখার এতকিছু করার পরও আগামী লোকসভা ভোটে রাণাঘাট ও কৃষ্ণনগর আসন দুটি তৃণমূল নিজেদের দখলে রাখতে পারে কিনা কারণ সব ভালো যার শেষ ভালো ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here