নবান্নে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে জুনিয়র ডাক্তারদের বৈঠক “লাইভ” সম্প্রচার হচ্ছে

0
24

মদনমোহন সামন্ত,কলকাতা : সোমবার সকাল সওয়া দশটায় এনআরএস-এ জুনিয়র ডাক্তারদের সাংবাদিক সম্মেলনের পর স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিকর্তা ডাঃ প্রদীপ মিত্র সরকারিভাবে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে নবান্নে জুনিয়র ডাক্তারদের বৈঠকের আমন্ত্রণপত্র নিজে জুনিয়র ডাক্তারদের কাছে পৌঁছে দিয়েছেন। জুনিয়র ডাক্তাররা নীলরতন সরকার হাসপাতাল থেকে নবান্নে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের পথে রওনা হওয়ার আগেই নীলরতন সরকার মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ আন্দোলনরত জুনিয়র ডাক্তারদের এক চিঠির মাধ্যমে জানিয়েছিলেন যে, মুখ্যমন্ত্রী তাঁর সঙ্গে জুনিয়র ডাক্তারদের বৈঠক “লাইভ” সম্প্রচারে রাজি হয়েছেন।

সেই সঙ্গে চাইলে তারা তাদের দলে আরো তিন থেকে চার জন অতিরিক্ত সদস্য যুক্ত করতে পারেন। অধ্যক্ষের লিখিত চিঠি অনুযায়ী ৩১ সদস্যের এক প্রতিনিধিদল নীলরতন সরকার মেডিক্যাল কলেজ থেকে নবান্নের উদ্দেশ্যে রওনা বৈঠকে বসেছেন। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে জুনিয়র ডাক্তারদের বৈঠকটি লাইভ সম্প্রচার করা হচ্ছে বিভিন্ন চ্যানেলে। বৈঠকটিতে মুখ্যমন্ত্রী ছাড়াও উপস্থিত আছেন স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য, স্বাস্থ্য সচিব রাজীব সিং, স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিকর্তা ডাঃ প্রদীপ মিত্র ছাড়াও রাজ্য পুলিশের ডিরেক্টর জেনারেল এবং কলকাতা পুলিশের পুলিশ কমিশনারসহ অন্যান্যরা। বৈঠকের শুরুতে মুখ্যমন্ত্রী ছাত্রদের সঙ্গে আলাপের সময় স্পষ্ট জানিয়ে দেন যে তারা নির্দ্বিধায় এবং নিঃসংকোচে তাদের বক্তব্য তুলে ধরতে পারে। তবে বক্তব্য জানানোর আগে তারা কলেজের নাম, প্রতিনিধির নাম বললে তাঁদের পক্ষে সুবিধা হয়। জুনিয়র ডাক্তারদের তরফ থেকে আগে ছয় দফা দাবি, গতকাল রবিবার রাত্রে এগারো দফা দাবি এবং আজ আবার মোট বারো দফা দাবি প্রস্তাব আকারে মুখ্যমন্ত্রীর বিবেচনার জন্য পেশ করা হয় মুখ্যমন্ত্রীর অনুমতি নিয়ে।

তবে প্রাথমিকভাবে জুনিয়র ডাক্তারদের তরফে জানানো হয়েছে যে তাদের ভয়ের সঙ্গে কাজ করতে হয়। বহুবার এই বিষয়ে মুখ্যমন্ত্রীর কাছে তারা এ ব্যাপারে জানানোর চেষ্টা করেছিলেন, তা হয়তো সঠিকভাবে তাঁর কাছে পৌঁছয়নি। তারা সকলেই কাজে তাড়াতাড়ি ফিরতে চান। কাজে ফেরার ক্ষেত্রে তারা সঠিক পরিবেশ চান এবং সেইসঙ্গে তারা নির্ভয়ে কাজ করার মত পরিবেশ চান। দুষ্কৃতীদের জন্য তারা দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেছেন যাতে ভবিষ্যতে ঘটনার পুনরাবৃত্তি না ঘটে। তারা আশা প্রকাশ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী ব্যস্ততার মধ্যেও সময় বের করে ছোট ভাই পরিবহকে যদি দেখতে যেতে পারেন। তারা সকলেই সমাধানে আসতে চান দ্রুত। কাজে ফিরতে চান যথাসম্ভব তাড়াতাড়ি। মুখ্যমন্ত্রীর উপরে তাদের পূর্ণ আস্থা আছে। তারা জানেন মুখ্যমন্ত্রীর সদিচ্ছার অভাব নেই।

বিভিন্ন মেডিকেল কলেজে অসামাজিক এবং অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটছে সেই সমস্ত ঘটনাবলীল বিরুদ্ধে যাতে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া যায় সে দাবিও মুখ্যমন্ত্রীর কাছে জুনিয়র ডাক্তাররা পেশ করছেন। আশা করা যাচ্ছে বৈঠকটি সদর্থক ফলপ্রসূ হবে এবং অচলাবস্থা কেটে রোগীরা আবার আগের মতই চিকিৎসা সহায়তা পেতে পারবেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here