বাংলায়  বিয়াল্লিশের মধ্যে একটাও আসন বিজেপি পাবে না, বললেন মমতা

0
40

সৌগত মন্ডল, রামপুরহাট-বীরভূম : ঠিক দুুুপুর  ১.৩৫ মিনিট নাগাদ রামপুরহাট সানঘাটা ব্রীজের কাছে সভামঞ্চে হাজির হলেন মুখ্যমন্ত্রী।

মঞ্চে উপস্থিত জেলার দুই মন্ত্রী আশিস বন্দ্যোপাধ্যায়, চন্দ্রনাথ সিনহা, বিধায়ক, জনপ্রতিনিধি ও প্রশাসনিক কর্তা, রাজ্যের আইজি রাজীব কুমার প্রমূখ।

এদিন শুরুতে কন্যাশ্রী মেয়েদের হাতে শংসা পত্র ছাড়াও, কৃষকবন্ধুদের চেক, লোক শিল্পীদের হাতে একতারা, ধামসা মাদল তুলে দেন। সবুজশ্রী প্রকল্পে মহিলাদের হাতে সবুজ চারাগাছ তুলে দিতে গিয়ে শিশুদের কোলে তুলে নেন, তাদের আদরও করেন।

এদিন মেদিনীপুরের কাঁথির পাল্টা জবাব দিল রামপুরহাটে সাননঘাটা ব্রীজের কাছে মুখ্যমন্ত্রীর সভা। এদিন তাঁর বক্তব্যের বেশীরভাগ জুড়েই ছিল বাংলার সম্প্রীতি।

তিনি শুরুতেই গান্ধীজীর ছবিতে পূষ্পার্ঘ দেন। এবং তার পর অমিত শাহকে উদ্দেশ্যে করে বলেন, গান্ধীজি জাতির জনক। তাঁকে আজকের দিনে হত্যা করে আর এস এস। আজ তারাই বাংলায় অশান্তির সৃষ্টি করছে।

গান্ধীজী আমাদের কি শিখিয়েছিলেন? শান্তিপূর্ণ সহবস্থান। কত গুলো অর্ধ শিক্ষিত বন্ডেড লেবারের দল। হয় প্রমাণ করুক বাংলায় দুর্গাপূজা হয় না। না পারলে রাজনীতি ছেড়ে দিন। আমি চ্যালেঞ্জ করছি। এখানে সব ধরণের পূজা হয়। প্রমাণ না দিতে পারলে রাজনীতি ছেড়ে দেব।

তারপর উপস্থিত জনতাকে প্রশ্ন করেন, আপনারা বলুন চিৎকার করে যাতে ওদের কানে পৌঁছায়, এখানে দুর্গা পূজা হয়? হলে জোরে বলবেন। তাঁর প্রশ্নের সাথে সাথে তারস্বরে আকাশে বাতাসে একটি ধ্বনিত প্রতিধ্বনিত হয়, এখানে দুর্গাপূজা হয়।

তারপর কন্যাশ্রী মেয়েদের দিকে প্রশ্ন ছুঁড়লে তারাও জানায়, স্কুলে সরস্বতী পূজা হয়। তারপর মুখ্যমন্ত্রী বলেন, আপনারা জানেন, ইউ পি, মুম্বাইয়ে দুর্গাপূজা করলে ইঙ্কামট্যাক্স কোন চিঠি পাঠায় না। সেটা পাঠানো উচিত তা বলছি না।

কিন্তু দূর্ভাগ্যের বিষয় বাংলায় সেটা হয়। আর এরাই এই সব মিথ্যা রটনা করে, বাংলায় নাকি দুর্গা পূজা হয় না। অথচ ওরাই কোলকাতার ৪০ তি ক্লাবকে নোটিশ পাঠিয়েছে ইঙ্কামট্যাক্স থেকে। আমরাই পূজা কমিটিকে ১০ হাজার টাকা দিয়েছি। শুধু ধর্ম নয়, আমরা স্কল ভাষাকে মর্যাদা দিই। সে অলচিকি, কামতাপুরি হোক বা উর্দুই হোক। আমি একটা ছবি আঁকলে, চুরি! আমি লিখলে চুরি। আমাকে সি বি আই, ইডি দেখিয়ে চমকানো, ধমকানো যাবে না।

বুধবার রামপুরহাটের সভামঞ্চ থেকে
তিনি আরও বলেন,”তোমরা ৪২ এ শূন্য পাবে,একটা আসনও এবার পাবে না।”তিনি আরও বলেন বিজেপি বাইরে থেকে লোক এনে রাজ্যে দাঙ্গা লাগানোর চেষ্টা করছে।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here