নিজস্ব প্রতিনিধি :বিনিয়োগকারীদের তালিকায় শীর্ষে রয়েছে ব্রিটানিয়ার মতো সংস্থা। বাংলায় উৎপাদন বাড়াতে ৩০০ কোটি টাকা লগ্নী করতে চলেছে তারা। বাকি ৪৫০ কোটি টাকা বিনিয়োগ করবে আরও ৮টি শিল্প সংস্থা।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্যোগে রাজ্যে চর্মশিল্পেও নয়া দিন আসতে চলেছে। উত্তরপ্রদেশের চর্মশিল্প ইউনিটগুলির বড় অংশের গন্তব্য এই রাজ্য। ঠাই মিলবে বানতলায়।

লোকসভা ভোটের আগে রাজ্যবাসীর মুখে হাসি ফোটাতে চলেছে নয়া বিনিয়োগের এই সুখবর।
নবান্নে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে শিল্প ও পরিকাঠামো সংক্রান্ত মন্ত্রীগোষ্ঠীর বৈঠকের পর পরিষদীয় মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় সাংবাদিকদের বলেন, ‘মন্ত্রীগোষ্ঠীর বৈঠকে অন্যতম সিদ্ধান্ত হল, শিল্প-বাণিজ্য দফতরের অধীনে নয়া শিল্প ইউনিট নির্মাণে ৭৫.৩৫ একর জমি দেওয়া হবে।

এর সঙ্গে নয়া বিনিয়োগের জন্য ৫০৬৮.১৮ বর্গফুট আয়তনের মডিউলও লগ্নীকারীরা পাবেন’। পার্থর হিসাব মতো সব মিলিয়ে রাজ্যে প্রায় সাড়ে সাতশো কোটি টাকা বিনিয়োগ আসতে চলেছে। এঁর মধ্যে ব্রিটানিয়া বিনিয়োগ করবে তিনশো কোটি। রাজ্য শিল্পোন্নয়ন নিগমের অধীনে কলকাতা-সহ রাজ্যের নানা জায়গায় যে শিল্প পার্কগুলি রয়েছে সেখানেই জমি দেওয়া হবে।
সরকারি সিদ্ধান্ত অনুয়ায়ী, ব্রিটানিয়া খড়্গপুরের শিল্প পার্কে জমি পাবে। সেখানে ওই সংস্থা বিস্কুট, কেক, ক্রসো বানাবে। ব্রিটানিয়া রাজ্য সরকারের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়ে বলেছে, রাজ্যের কাছে ব্রিটানিয়া নয়া বিনিয়োগের প্রস্তাব পেশ করেছিল। তাতে ভালো সাড়া মেলায় বিনিয়োগের ভবিষ্যৎ সম্পর্কে তারা খুবই আশাবাদী।
পাশাপাশি বানতলার লেদার কমপ্লেক্সে কগনিজেন্ট-সহ সিলিকন ভ্যালিতে তথ্য-প্রযুক্তি সংস্থাগুলিকে জায়গা দেওয়ার ব্যাপারেও সিদ্ধান্ত নিয়েছে মন্ত্রীগোষ্ঠী। ফলে লেদার কমপ্লেক্সকে আরও আধুনিক করা যাবে। আগামী মাসেই বেঙ্গল গ্লোবাল বিজনেস সামিট। তার আগে যেভাবে শিল্প তালুকে জায়গা চেয়ে আবেদন জমা পড়ছে তাতে খুশি রাজ্য শিল্প দপ্তর। ১০০ বছরের পুরনো সংস্থা ব্রিটানিয়া ইন্ডাস্ট্রিজ বিস্কুট-কুকিজের ক্ষেত্রে নামী। তারা কলকাতার কাছাকাছি জমি নিতে পারে বলে নবান্ন সূত্রে খবর। আরও সাতটি আবেদনকারীর চাহিদা মেনেই জায়গা ঠিক করবে রাজ্যের শিল্প উন্নয়ন নিগম।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here