নিজস্ব প্রতিনিধি : হনুমান দলিত ছিলেন। এমন মন্তব্য করে প্রবল বিতর্কে জড়িয়েছিলেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ।

তাঁর বিরুদ্ধে মামলাও করে রাজস্থানের একটি হিন্দুত্ববাদী সংগঠন। কিন্তু সেখানেই না থেমে হনুমানকে জৈন, মুসলিম, খেলোয়াড়, চীনা এমনকি জাঠ বলেও সম্বোধন করা হয়েছিল। এবার নতুন বিতর্ক তৈরি হল মোদীর শহরে। হনুমানকে বানিয়ে দেওয়া হল সান্তা ক্লজ।

হনুমান পড়ে আছেন সাদা বর্ডার দেওয়া লাল ফুলহাতা জামা। তেমনই ফুল প্যাণ্ট। মাথায় লম্বা সান্তা টুপি। নতুন বছরের আগে গুজরাতের সারঙ্গপুরের একটি মন্দিরে এমন সান্তার বেশেই সাজানো হয়েছে পবনপুত্র হনুমানকে।

গোটা ঘটনায় নতুন বিতর্ক তৈরি হয়েছে এলাকায়।
এমন সান্তার পোশাকে হনুমানকে দেখে আপত্তি জানিয়েছেন মন্দিরে আসা বহু ভক্ত। মন্দির কর্তৃপক্ষের ওপর বেজায় চটেছেন তাঁরা। বিক্ষোভও হয়েছে বিস্তর। শেষ পর্যন্ত সাফাই দিতে বাধ্য হয় কর্তৃপক্ষ। মন্দির কর্তৃপক্ষ বলেন, ‘এই পোশাকগুলি উল দিয়ে তৈরি। যা ভগবানকে ঠাণ্ডা থেকে রক্ষা করবে।’

মন্দিরের প্রধান পুরোহিত স্বামী বিবেকসাগর মহারাজ জানান, সান্তাক্লজের পোশাক নয় এইগুলো। তিনি বলেন, ‘পোশাকগুলি ভেলভেট দিয়ে তৈরি বলেই আমরা হনুমানজিকে পরিয়েছি। কারোর ভাবাবেগে আঘাত করার জন্য এটা করা হয়নি’।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here