দাদার বাড়িতে আগুন লাগিয়ে খুন, মূল অভিযুক্ত গ্রেফতার 

0
40

 

নিজস্ব প্রতিনিধি মালদা : সরকারি কর্মচারি মৃত বাবার চাকরির লোভে ভাইয়ের বাড়িতে আগুন লাগিয়ে ৬ জনকে খুন করার  চেষ্টার  ঘটনায় মূল অভিযুক্ত মাখন মন্ডলকে গ্রেপ্তার করল পুলিশ।

দীর্ঘ কয়েক দিন ধরে পুলিশের নজরের বাইরে গা ঢাকা দিয়েছিল অভিযুক্ত মাখন।

সোমবার দুপুরে মোথাবাড়ি থানার পুলিশ ও মানিকচক থানার পুলিশ গোপন সূত্রে খবর পায় অভিযুক্ত মাখন মন্ডল তার এক আত্মীয়রবাড়িতে গা ঢাকা দিয়ে আছে।

খবর পাওয়া মাত্রই মোথাবাড়ি থানা ও মানিকচক থানার পুলিশ মোথাবাড়ি থানা এলাকার রামনাথটোলা এলাকায় অভিযুক্তের খোঁজে আত্মীয়র বাড়িতে হানা দেয়।

পুলিশকে দেখে অভিযুক্ত ছাদ থেকে নিচে লাফাতে গেলে নিচে একটি রডের ফাঁকে তার গলা় ঢুকে পড়ে। সেখানে সে আহত হয়ে পড়ে যায়।

ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ মালদা জেলা মেডিক্যাল হাসপাতালে নিয়ে এসে ভর্তি করে দীর্ঘক্ষন চিকিৎসার পর তাকে ভর্তি করা হয়।

পুলিশ জানিয়েছে, মানিকচক থানার মদনটোলা গ্রামের বাসিন্দা মৃত বাবা গেদুধর মন্ডলের এনভিএফের চাকরি পাওয়া নিয়ে চার ছেলের মধ্যে গোলমালের সূত্রপাত। আর তারই জেরে সেজো ভাইয়ের হাতে খুন হতে হয় অপর তিন ভাইয়ের পরিবারের ছয় জনকে।

এখনও তিনজনের চিকিৎসা চলছে মালদা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে।মেডিক্যাল কলেজের ডেপুটি সুপার ডাঃ জ্যোতিষ চন্দ্র দাস জানিয়েছেন, অগ্নিদগ্ধ অবস্থায় আহত ছোটু মন্ডল (৭), ববিতা মন্ডল (২৩) এবং বিশাল মন্ডল (১৩) এই তিনজন সঙ্কটজনক অবস্থায় রয়েছে ।

বার্ন ইউনিটে তাদের এখনও চিকিৎসা পরিষেবা দেওয়া হচ্ছে।পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, গত ৫ ফেব্রুয়ারি মেডিক্যাল কলেজে মৃত্যু হয় রাখী মন্ডল (২৪) এবং গোপী মন্ডলের (২৮)।

এর আগে এই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ৩ ফেব্রুয়ারি রাতে মানিকচক থানার মদনটোলা গ্রামের বাড়িতেই অগ্নিদগ্ধ হয়ে মৃত্যুহয়েছিল দুই কন্যা শিশু প্রিয়া মন্ডল (আড়াই বছর) এবং দেবশ্রী মন্ডলের (ছয় বছর)।

৪ ফেব্রুয়ারি মেডিকেল কলেজে মৃত্যু হয় ওই দুই শিশু কন্যার বাবা বিকাশ মন্ডলের (৩৫) এবং ভাই গোবিন্দ মন্ডলের (২৯)। জানা গিয়েছে, মৃত গেদুধর মন্ডল এনভিএফে কর্মরত ছিলেন। চাকরিরত অবস্থায় তিনি মারা যান।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here