নতুন প্রজন্মকে বেশি করে বই পড়ার আহ্বান মন্ত্রী শুভেন্দুর

0
50

তুহিন শুভ্র আগুয়ান;হলদিয়াঃআমাদের নতুন প্রজন্ম বই পড়া থেকে কিছুটা পিছিয়ে যাচ্ছে।তারা স্মার্ট ফোনের মধ্যে নিজেকে নির্বন্ধীত করছে।

ফলে শিক্ষক-শিক্ষিকারা ও অভিভাবক-অভিভাবিকা যদি এটা নিয়ে আলোচনা না করেন তাহলে আমাদের আগামী প্রজন্মের ক্ষতি হয়ে যাবে।মঙ্গলবার পূর্ব মেদিনীপুর জেলার মহিষাদল বইমেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে এমনটাই জানান পশ্চিমবঙ্গ সরকারের পরিবহন তথা পরিবেশমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী।

তিনি আরও জানান,বইমেলায় যত ভালো অনুষ্ঠান হোকনা কেন বই কেনাবেচা যদি না হয় আগামী দিনে কোনো পাবলিসার্স আসবে না।তাই বইমেলাকে উৎসাহিত করার জন্য আপনাদের বই কেনাবেচার দরকার আছে।

তিনি স্বামী বিবেকানন্দের শিকাগো বক্তৃতা ও ইশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর বিদ্যাসাগরের বর্ণপরিচয় প্রসঙ্গ উল্লেখ করে বলেন,স্বামী বিবেকানন্দের শিকাগো বক্তৃতার ইংরেজি ও বাংলা হরফে ছাপা স্বামী সুবিরানন্দজি সম্পাদিত বই স্কুল শিক্ষা দপ্তর সমস্ত সরকারি স্কুলে বিতরণ করা হচ্ছে।

এটি আপনি যেমন মোবাইলে রেকর্ডিং শুনে তৃপ্তি পাবেন না,তেমনি এটাকে কোনো টেপ রেকর্ডার চালিয়ে হেডফোনে শুনলেও তৃপ্তি পাবেন না।এটা আপনাকে পড়তেই হবে।

এছাড়াও ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর যদি বর্ণপরিচয় আবিষ্কার না করতেন তাহলে আমরা কেউ নাম ও পরিবারের নাম লিখতে পারতাম না।আমাদের অক্ষর পরিচয়ই হত না।

বিদ্যাসাগরের বোধোদয়,বেতাল পঞ্চবিংশতি সহ তাঁর হাজারেরও বেশি লেখনি যা ভারতবর্ষকে সমৃদ্ধ করেছে।আমরা নিশ্চিত ভাবে এই বর্ষে বইমেলা ও বিদ‍্যাসাগর মহোদয়কে নিয়ে আলোচনা করবো এবং বই পড়ার ক্ষেত্রে উৎসাহিত করবো।শুভেন্দুবাবু তিনি তার গত নভেম্বর মাস থেকে জানুয়ারি মাসের ৬তারিখ পর্যন্ত কলকাতা বাগডোগরা বিমান যাত্রা উল্লেখ করে বলেন,আমি গত নভেম্বর মাস থেকে জানুয়ারি মাস পর্যন্ত প্রায় ১০বার বিমানে যাতায়াত করেছি।যারমধ্যে চারবার আমি আমার পাশের সিটে বিদেশিদের পেয়েছিলাম।যারা সিকিম বা দার্জিলিং বেড়াতে যাচ্ছিলেন।আমি দেখলাম ট্রেন স্টার্ট করার সাথে সাথে তারা সমস্ত কিছু সরিয়ে দিয়ে ইংরেজিতে লেখা বই বের করলেন এবং তারা একদম যাত্রা শেষ পর্যন্ত পড়লেন।তাই আশা করব,হলদিয়া সহ আশেপাশের সমস্ত বিদ্যালয় ও পাঠাগার এই বইমেলা থেকে বই কিনবে এবং পড়বে।
এদিনের এই বইমেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মাননীয় মন্ত্রী ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন নন্দকুমার বিধানসভার বিধায়ক সুকুমার দে,মহিষাদল পঞ্চায়েত সমিতির সহ-সভাপতি তিলক কুমার চক্রবর্তী,হলদিয়া মহকুমা শাসক কুহুক ভূষণ,বিশিষ্ট সাহিত্যিক শ্যামলকান্তি দাস,শিক্ষাবিদ হরিপদ মাইতি সহ বিশিষ্টজনেরা।মেলার উদ্বোধনের আগে এক বিশাল মাপের পদযাত্রা বের হয়।যেখানে পা মেলান স্হানীয় স্কুলগুলির ছাত্র-ছাত্রী,শিক্ষক-শিক্ষিকা সহ এলাকার বিশিষ্টজনেরা।এবারের মহিষাদল বইমেলা চলবে আগামী ২০জানুয়ারি পর্যন্ত

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here