নিজস্ব সংবাদদাতা,পূর্ব-বর্ধমান: হাওড়া জেলার বালী-জগাছা ব্লকে চকপাড়া-আনন্দনগর গ্রাম পঞ্চায়েতের অন্তর্ভুক্ত ঘুঘুপাড়ায় জেলাস্তরের প্রাণী স্বাস্থ্য ও টীকাকরণ শিবিরের পাশাপাশি উন্নত প্রথায় প্রাণীপালন বিষয়ক সচেতনতার লক্ষ্যে আলোচনা সভা উদযাপিত হয়েছে গত ২৭ ফেব্রুয়ারী ।

ওই শিবিরে সংকর গাভী ও বকনা প্রদর্শনীতে এলাকার প্রাণীপালকেরা ৪০টিরও বেশি সংখ্যক উন্নত গাভী ও বকনা নিয়ে আসেন। প্রত্যেক প্রাণীপালককে পুরস্কৃত করা হয়। এছাড়াও বসে আঁকো প্রতিযোগিতায় ৬৭ জন অংশ গ্রহণ করে ও প্রত্যেককে পুরস্কার দেওয়া হয়। শিবিরে ১২২টি গবাদিপশুর চিকিৎসা করা হয় এবং ১৭৯ গবাদিপশু ও হাস মুরগীর টীকা প্রদান করা হয়।

বিশিষ্ট প্রাণী চিকিৎসক শল্যবিদ ডাঃ সুব্রত সানকি একটি জার্মান শেফার্ড কুকুরের অস্ত্রপ্রচার করেন। প্রাণীপালকদের উন্নত প্রথায় প্রাণী পালন সম্বন্ধে অবহিত করেণ ব্লক প্রাণীসম্পদ উন্নয়ন আধিকারিক ডাঃ দেবজ্যোতি ঘোষ। উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রাণী চিকিৎসা আধিকারিক ডাঃ শান্তনু বেরা, প্রাণী চিকিৎসক ডাঃ রেশমি ঘোষ।

সভায় বালী-জগাছা পঞ্চায়েত সমিতির মৎস্য ও প্রাণীসম্পদ স্থায়ী সমিতির কর্মাধ্যক্ষ লীনা সাতরা বলেন, আমরা ব্লকে ১৫৭৮ জন উপভোক্তাকে দশটি করে ২৮ দিন বয়সের RIR মুরগির বাচ্চা, ৫০ জন উপভোক্তাকে দশটি করে ২৮ দিন বয়সের ক্যাম্পবেল হাঁসের বাচ্চা, ৩৮ জনকে ৫ টি করে ছাগল এছাড়াও উন্নত সবুজ ঘাসের বীজ প্রদান করা হয়েছে। চকপাড়া-আনন্দনগর পঞ্চায়েত প্রধান মোনিকা দে বলেন, প্রাণীসম্পদ দপ্তর প্রাণী পালকদের উন্নয়নে চেষ্টা করে চলেছেন।এলাকার অনেক জনপ্রতিনিধি, বিভাগের প্রাণী উন্নয়ন সহায়ক, প্রাণী বন্ধু, প্রাণী মিত্রা ও বিশিষ্ট জন উপস্থিত ছিলেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here