নিজস্ব প্রতিনিধি: অন ডিউটি পুলিশ কনস্টেবলের রকাক্ত মৃতদেহ নিয়ে চাঞ্চল্য উত্তর দিনাজপুর জেলার চোপড়ায়। বৃহস্পতিবার গভীর রাতে দলুয়া প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রের সামনে পুলিশ জীপের মধ্যে রক্তাত কনস্টেবলের মৃতদেহ দেখা গেলেও, তার মৃত্যুর প্রকৃত কারন নিয়ে মুখে কুলুপ এটেছেন পুলিশের আধিকারিক থেকে অন্যান্যরা সবাই।

পুলিশ সুত্রে জানা গেছে, মৃত ওই কনস্টেবল রাতে আর.টি ভ্যানে কর্মরত ছিলেন। সেই ভ্যানটি চোপড়ার কলাগছ এলাকায় ডিউটিরত ছিল। স্বাস্থ্যকেন্দ্রের কর্মীরা প্রাথমিকভাবে মৃতদেহ দেখে অনুমান করছে গুলিতে মৃত্যুতে হয়েছে ওই কনস্টেবলের।

মৃত কনস্টেবলের নাম সাব্বির আলম।
পুলিশ সুত্রে জানাগেছে ঘটনা রাত ২.৩০ টা নাগাদ। কালাগছ মোড়ে ৩১ নাম্বার জাতীয় সড়ক ও পুর্ত সড়কের সংযোগ স্থলে রাতের মোবাইল পুলিশ জীপটি দাড়িয়েছিল।

পুলিশের গাড়িতেই বসেছিলেন পুলিশের ১ আধিকারিক সহ ৩ জন। সাব্বির ফোনে কথা বলতে গাড়ি থেকে নেমে কয়েক মিটার দুরত্বে কথা বলছিল। আচমকা একটা শব্দ শোনা যায়।

পুলিশ জীপ থেকে নেমে অন্যন্যরা ছুটে গিয়ে দেখেন নিথর সাব্বির রক্তাত অবস্থায় পড়ে আছে। আলো আধারিতে দু’জনকে পালিয়ে যেতেও দেখেন কেউ কেউ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here