নিজস্ব প্রতিনিধি:  “৩৪ বছর ধরে সিপিএম যে কাজ করতে পারেনি আমরা সেই কাজ করে দেখিয়ে দিই। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যে স্বপ্ন দেখেন তা আমরা বাস্তবে রুপ দিই। ৩৪ বছর ধরে রাজ্যে ক্ষমতায় থাকা সিপিএম সুন্দরবন এলাকার মানুষ কে গুরুত্ব দিত না বলেই এতদিন এই এলাকার মানুষেরা ব্রাত্য ছিল।

“কিন্তু বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সুন্দরবন এলাকার মানুষ কে ব্যাপক গুরুত্ব দেন বলেই এই সেতু আজ বাস্তবে রুপ নিয়েছে। এই সেতু ছাড়াও এই সুন্দরবন অধ্যুষিত এলাকায় আরও বেশ কয়েকটি সেতুর কাজ খুব শীঘ্রই শুরু হবে”।

বৃহস্পতিবার বিকালে উত্তর ২৪ পরগনা জেলার হাসনাবাদে ইছামতী নদীর উপর “বনবিবি সেতু” উদ্বোধন করতে এসে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে এই কথাই বললেন রাজ্যের খাদ্য ও সরবরাহ মন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক ।

খাদ্যমন্ত্রী ছাড়াও এদিন উপস্থিত ছিলেন উত্তর ২৪ পরগনা জেলার জেলা শাসক অন্তরা আচার্য, জেলা পরিষদের সভাধিপতি তথা বিধায়ক বীনা মন্ডল, সাংসদ ইদ্রিস আলি সহ অনেকেই ।
2004 সালে বামফ্রন্টের দেওয়া প্রতিশ্রুতি পালন করল তৃণমূল সরকার।।

বহু প্রতীক্ষিত সুন্দরবনের বনবিবি সেতুর উদ্বোধন হলো বৃহস্পতিবার। এই সেতু দুই 24 পরগনার যোগাযোগের এক নতুন দিগন্ত খুলে দেবে বলে দাবি স্থানীয় বাসিন্দাদের। উত্তর 24 পরগনা বসিরহাট মহকুমার হাসনাবাদে ইছামতী নদীর উপরে প্রায় সাড়ে তিন বছরের নতুন সেতু পেল সুন্দরবনের মানুষ।

বসিরহাট মহাকুমার সুন্দরবন লাগোয়া ব্লকগুলি হিঙ্গলগঞ্জ, সন্দেশখালি, হাসনাবাদ, হেমনগর সহ বিস্তীর্ণ এলাকার মানুষের যোগাযোগের মাধ্যম একমাত্র ছিল নৌকা। ফেরি চলাচল এর মাধ্যমে বসিরহাট শহর থেকে কলকাতায় পৌঁছানো তাদের কাছে এক দুর্বিসহ হয়ে উঠেছিল। ছাত্রছাত্রী থেকে সাধারণ মানুষের দীর্ঘদিনের দাবি ছিল এই ব্রিজের।

 

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here