বেঙ্গল ওয়াচ ডেস্ক ::বৃষ্টির কারণে ম্যাচের ওভার কমে হয়েছিল ৮।

 

 

 

 

ভারতের টার্গেট ছিল ৯১। চার বল বাকি থাকতেই সেই লক্ষ্যে মেন ইন ব্লু পৌঁছে যায়। নাগপুরে ৬ উইকেটে জয়ের সুবাদে বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের বিরুদ্ধে সমতা ফেরাল ভারত। কাল হায়দরাবাদে সিরিজ নির্ণায়ক ম্যাচ। রোহিত শর্মা ম্যাচের সেরা হয়ে জানিয়েছেন, নিজের ব্যাটিং তাঁকে অবাকই করেছে। হিটম্যানের প্রশংসা করেছেন সুনীল গাভাসকরও।

সুনীল গাভাসকর স্টার স্পোর্টসকে বলেছেন, রোহিত হিসেব কষে নিজের শক্তি অনুযায়ী খেলে দলকে জয় এনে দিয়েছেন। জোর করে আলাদা কিছু করতে যাননি, সেটাই গুরুত্বপূর্ণ হয়েছে ম্যাচ জেতার ক্ষেত্রে। গাভাসকরের কথায়, রোহিতের ব্যাটিং ধরন দেখে বোঝা গিয়েছে তিনি হিসেব কষে খেলেছেন। শট বাছাই করেছেন নিপুণভাবে। তা সত্ত্বেও রক্ষণাত্মক খেলতে হয়নি। ফ্লিক বা পুল শটগুলি খেলেছেন দারুণভাবেই। অফ সাউডে শট খেলতে কিছু সমস্যা ছিল। সে সম্পর্কে ওয়াকিবহাল থেকে তিনি হাওয়ায় ভাসিয়ে শট খেলেছেন, তবে জোর করে গ্যালারিতে পাঠানোর চেষ্টা করেননি। রোহিত যে নিজের শক্তি অনুযায়ী স্বাভাবিকভাবেই ব্যাট করেছেন তাতে খুশি সানি।

গাভাসকর রোহিতের ব্যাটিংকে অসাধারণ বলেও অভিহিত করেছেন। তিনি বলেন, নিজের রেঞ্জে থাকা বলগুলিতে রোহিত যে শটগুলি নিয়েছেন তাতে তাঁকে কোনও সমস্যাতেই পড়তে হয়নি। হিসেব কষে পরিস্থিতি বুঝে ইনিংস খেলেছেন। তিনি বলের জন্য অপেক্ষা করছিলেন। যে বলে যে ধরনের শট খেলার দরকার সেইমতো কাট, পুল খেলেছেন। সোজাসুজি শট খেলার দরকার দরকার পড়েনি। তিনি ব্রিলিয়ান্টলি ব্যাট করেছেন।

রোহিত নিজের ব্যাটিংয়ে নিজেই অবাক। চারটি করে চার ও ছয় মেরে ২০ বলে ৪৬ রানে অপরাজিত থেকে হয়েছেন ম্যাচের সেরা। রোহিতের কথায়, আমি নিজেও কিছুটা অবাক। এমনটা যে হবে তা প্রত্যাশা করিনি। তবে গত ৮-৯ মাস ধরে আমি যেভাবে ব্যাট করে আসছি তাতে খুব বেশি পরিবর্তন আনিনি। কিন্তু এমন ম্যাচে খুব বেশি পরিকল্পনা করে খেলার সুযোগ থাকে না। পরিস্থিতি অনুযায়ী কন্ডিশনকে নিজের ব্যাটিং সহায়ক করে নিয়ে খেলাটাই গুরুত্বপূর্ণ। আমরা যখন বল করছিলাম তখন বোলাররা কিছুটা সাহায্য পেয়েছেন। পরিস্থিতি কাজে লাগিয়েই তাঁরা বল করেছেন। পরের দিকে শিশির পড়তে শুরু করেছিল। এতে পরিস্থিতি কতটা কঠিন হয় সকলের পক্ষেই সেই শিক্ষা নেওয়া জরুরি।

ভারত এদিন জয়ের সুবাদে এক ক্যালেন্ডার ইয়ারে সবচেয়ে বেশি টি ২০ জেতার পাকিস্তানের রেকর্ড স্পর্শ করল। ২০২১ সালে বাবর আজমের পাকিস্তান জিতেছিল ২০টি টি ২০ আন্তর্জাতিক। ভারতও চলতি বছরে ২০টি টি ২০ আন্তর্জাতিক জিতল। হায়দরাবাদে জিতলে ভারত পাকিস্তানকে পিছনে ফেলে রেকর্ড এককভাবে নিজেদের দখলে নিতে পারবে। রোহিত খুশি জসপ্রীত বোলিং ক্রমে নিজের ছন্দ ফিরে পাওয়ায়। অক্ষর যেভাবে নিজের দায়িত্ব পালন করছেন রবীন্দ্র জাদেজার অনুপস্থিতিতে, তাতেও সন্তুষ্ট ভারতীয় শিবির। রোহিত বলেন, বিভিন্ন ম্যাচে অক্ষর অবদান রাখছেন। তিনি যে কোনও জায়গায় বোলিং করতে পারদর্শী।

প্রথম টি ২০ আন্তর্জাতিকে রোহিত মেরেছিলেন একটি ছক্কা। তাতে টি ২০ আন্তর্জাতিকে সবচেয়ে বেশি ছক্কা মারার মার্টিন গাপটিলের কীর্তি স্পর্শ করেছিলেন। ভারত অধিনায়ক গতকাল চারটি ছক্কা হাঁকিয়েছেন। এর ফলে তিনি গাপটিলকে পিছনে ফেলে টি ২০ আন্তর্জাতিকে সবচেয়ে বেশি ছয় মারার রেকর্ডটিও নিজের দখলে নিলেন হিটম্যান। টি ২০ আন্তর্জাতিকে রোহিত ১৩৮ ম্যাচে ১৩০টি ইনিংস খেলেছেন। সবচেয়ে বেশি ৩৬৭৭ রানের মালিকও তিনি। তাঁর ছয়ের সংখ্যা বেড়ে হলো ১৭৬।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here