বেঙ্গল ওয়াচ ডেস্ক ::২৫ সেপ্টেম্বর রবিবার মহালয়া।

 

 

 

 

পিতৃপক্ষের অবসানে শুরু হবে দেবীপক্ষ। ওইদিন ঘাটে ঘাটে তর্পণের জন্য আসবেন লাখো মানুষ। এরপর পুজো শেষে দশমীর দিন সেই ঘাটেই হবে দেবীর নিরঞ্জন। এবার তাই শহরের গঙ্গার ঘাটগুলো পরিদর্শন করলেন হাওড়া পুরসভা ও সিটি পুলিশের আধিকারিকরা।দোরগোড়ায় শারদ উৎসব। আর সেই উৎসবের শেষ অংশ হিসেবে রয়েছে ভাসান বা নিরঞ্জন প্রক্রিয়া। বৃহস্পতিবার দুপুরে হাওড়া পুরসভার মুখ্য প্রশাসক ডাঃ সুজয় চক্রবর্তী, পুরসভার কমিশনার ধবল জৈন ও হাওড়া সিটি পুলিশের অ্যাসিস্ট্যান্ট পুলিশ কমিশনার সহ অন্যান্য আধিকারিকরা বেশ কয়েকটি বড়ো ঘাট ঘুরে দেখেন। মধ্য হাওড়া, শিবপুর থেকে উত্তর হাওড়ার বাধাঘাট পর্যন্ত কয়েকটি ঘাট পরিদর্শন করেন তাঁরা। মহালয়ায় তর্পন থেকে শুরু করে নিরঞ্জন বা ভাসানের ক্ষেত্রে কি কি ব্যবস্থা নেওয়া প্রয়োজন বা ঘাটগুলোর বর্তমানে কি অবস্থায় রয়েছে তা খতিয়ে দেখতেই এদিনের এই পরিদর্শন। একই সঙ্গে প্রতিমা নিরঞ্জনের সময় গঙ্গা দূষণের কথাও মাথায় রেখে কাজ করা হবে বলেই জানিয়েছেন হাওড়া পুরসভার মুখ্য প্রশাসক ডাঃ সুজয় চক্রবর্তী। তিনি জানান, গঙ্গা দূষণ প্রতিরোধ করে সুষ্ঠুভাবে নিরঞ্জন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা আমাদের লক্ষ্য।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here