বেঙ্গল ওয়াচ ডেস্ক ::দেশে ভয় দেখিয়ে কিংবা লোভ বা আর্থিক সুবিধার মাধ্যমে ধর্মান্তরের অভিযোগ উঠেছে বারে বারে।

 

 

 

 

যা নিয়ে মামলায় হয়েছে। তবে এবার দেশের সর্বোচ্চ আদালতের তরফে প্রতিক্রিয়া চাওয়া হয়েছে। আদালতের করা আবেগনের প্রেক্ষিতে এই ধরনের জালিয়াতিমূলক ধর্মান্তর নিয়ন্ত্রণে কঠোর পদক্ষেপ কী হতে পারে, তা নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকার, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক এবং আইন-বিচার মন্ত্রককে নোটিশ পাঠিয়েছে।

সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি এমআর শাহ এবং কৃষ্ণা মুরারির বেঞ্চে এব্যাপারে শুনানি হয়। সুপ্রিম কোর্টের তরফে এব্যাপারে ১৪ নভেম্বরের মধ্যে উভয় পক্ষকে জবাব দিতে বলেছে।

অশ্বিনী উপাধ্যায় নামে এক আইনজীবী সুপ্রিম কোর্টে এব্যাপারে আবেদন করেছিলেন। যেখানে ভয় দেখিয়ে, হুমকির মাধ্যমে, উপহার ও আর্থিক সুবিধার মাধ্যমে লোভ দেখিয়ে ধর্মান্তরের অভিযোগ করা হয়েছিল। বিষয়টিতে প্রতারণামূলক ধর্মান্তর বলে অভিযোগ করে তা বন্ধ করতে যাতে কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারগুলিকে যাতে নির্দেশ দেওয়া হয়, সে ব্যাপারেও আবেদন জানানো হয়। সর্বোচ্চ আদালতে করা আবেদনে ওই আইনজীবী বলেন, এই সমস্যা দেশব্যাপী, যার মোকাবিলা করা প্রয়োজন। দেশের এমন কোনও জেলা নেই, যেখানে এইভবে ধর্মান্তর হয় না, আবেদনে বলেছিলেন ওই আইনজীবী।

আইনজীবী অশ্বিনী উপাধ্যায় সুপ্রিম কোর্টে করা আবেদনে বলেছেন, প্রতি সপ্তাহেরই দেশের ভিন্ন জায়গা থেকে ভয় দেখিয়ে, হুমকি দিয়ে, উপহার ও আর্থিক সুবিধা দেওয়ার নাম করে, ব্ল্যাক ম্যাজিক, কুসংস্কার, অলৌকিকতার মাধ্যমে ধর্মান্তরিত করা হয়। তবে কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারগুলি এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়নি বলে অভিযোগ করেছেন ওই আইনজীবী।

সুপ্রিম কোর্টে করা আবেদনে ওই আইনজীবী ভারতের আইন কমিশনের মাধ্যমে এই ধরনের ঘটনা নিয়ে প্রতিবেদন তৈরির করার পাশাপাশি এইভাবে ধর্মান্তর নিয়ন্ত্রণ করতে বিল তৈরির জন্য নির্দেশ দেওয়ারও আবেদন করেছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here