শাশ্বতী চ্যাটার্জি : ১৯০৮ সালে আন্না জারডিস প্রথম ‘মাদার্স ডে’ উৎযাপন করেন। পরবর্তী সময়ে এই দিন  আন্তর্জাতিক মাতৃদিবস হিসাবে পালিত হয়।মায়েদের  প্রতি শ্রদ্ধা ও সম্মান জানানোর জন্যই ‘মাদার্স ডে’ উদযাপিত হয়।এই দিনটি বিশ্বজুড়ে মাতৃত্ব ও মাতৃসত্ত্বার গুরুত্ব এবং তাৎপর্য স্মরণ করিয়ে দেয়।

 

 

 

 

 

 

মানুষ ও মনুষ্যেতর প্রাণীর মধ্যে ‘মা’  প্লাবনভূমি।সেই ঢেউ থেকেই আমাদের জন্ম,বৃদ্ধি এবং পরিণতির দিকে এগিয়ে যাওয়া।নিদ্রাজাগরনে,সুখ-শান্তিতে,দারিদ্র,বিলাসিতায় মা তাই এক ও অনন্য।এই সৃষ্টির মধ্যে দিয়েই পৃথিবী ও সভ্যতা এগিয়ে চলে নিরন্তর গতিতে।তাই ৩৬৫ দিনই হোক মাতৃদিবস।

 

 

 

 

 

 

সভ্যতার বিকাশের সঙ্গে সঙ্গে আমরা ‘মা’ শব্দের তাৎপর্য হারিয়েছি বলে আজ গজিয়ে উঠেছে এত বৃদ্ধাশ্রম।পৃথিবীর সকল সন্তানের হৃদয় পূর্ণহোক মাতৃ ভক্তিতে।বৃদ্ধাশ্রম যেন কোনও মায়ের ঠিকানা না হয়।দুনিয়ার সবকিছুই বদলাতে পারে কিন্তু মা- এর ভালোবাসা কখনো বদলাবার নয়। মা হলেন মমতার মহল,পিপাসার জল,ভালোবাসার সিন্ধু,উত্তম বন্ধু,নিরাপত্তা,কষ্টের মাঝে সুখ,জান্নাতের মালিক।

 

 

 

 

 

 

পৃথিবীর সকল মা-কে জানাই আন্তর্জাতিক মা দিবসের অনেক অনেক শুভেচ্ছা ও ভালোবাসা।

 

 

 

 

 

“A mother is treasure,
Whose worth cannot be measured.
God blessed me with a mother
Who is like no other.”

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here