মুখ্যমন্ত্রীর সভায় গাড়ি না দেওয়ায় হাত ভেঙ্গে দেওয়া হল চালকের অভিযোগ বাঁকুড়ায়

0
34

নিজস্ব প্রতিনিধি বাঁকুড়াঃবুধবার বাঁকুড়ায় প্রশাসনিক সভা ছিল মুখ্যমন্ত্রীর।কিন্তু দলের নেতার কথা অগ্রাহ্য করে গাড়ি না দেওয়ায় এক জিও চালককে ব্যাপক মারধোরের অভিযোগ উঠলো বাঁকুড়া শহরে। অভিযোগ শহরের ১৫ নম্বর ওয়ার্ড এলাকার তৃণমূল কাউন্সিলর পিঙ্কি চক্রবর্ত্তীর স্বামী বাপী চক্রবর্ত্তী ও তার দলীয় কর্মীদের বিরুদ্ধে। আক্রান্ত জিও চালকের নাম আহম্মেদ হোসেন দালাল। ঘটনাটি বাঁকুড়া শহরের কেন্দুয়াডিহি এলাকার।

তৃণমূল শ্রমিক সংগঠনের নেতা আকবর দালাল অভিযোগ করেন বাপী চক্রবর্তী তাদের কাছে সভার জন্য কিছু জিও গাড়ি চেয়েছিলেন। তারা দশটি গাড়ি দিয়েও দিয়েছিলেন।কিন্তু দুটি গাড়িতে আগের থেকেই যাত্রীবোঝাই থাকায় সে দুটি ছেড়ে দিতে অনুরোধ করেন। প্রথমে নাকি বাপী চক্রবর্তী ছেড়ে ও দেন।কিন্তু ঐ গাড়ি দুটির একটি নিয়ে আহম্মেদ হোসেন দালাল যখন বাপী চক্রবর্তীর পার্টি অফিসের পাশ দিয়ে পেরোচ্ছিল তখন বাপী চক্রবর্তীর নির্দেশই তার দলবল নাকি আহম্মেদ কে মারধর করে। এমনকি যাত্রীদের ও জোর করে হুমকি দিয়ে নামিয়ে দেওয়া হয়। কেঠারডাঙ্গার বাসিন্দা আহম্মেদ হোসেন দালাল অভিযোগ করেন বুধবার দুপুরে যখন যাত্রী বোঝাই জিও গাড়ি নিয়ে যাচ্ছিলেন। কেন্দুয়াডিহি এলাকায় তৃণমূলের কার্যালয়ের পাশ দিয়ে তিনি জিও নিয়ে যাওয়ার সময় স্থানীয় কাউন্সিলরের স্বামী তাকে দাঁড়াতে বলেন। শহরের রবীন্দ্র ভবনে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রশাসনিক বৈঠকে যোগ দিতে বেশ কিছু টোটো-জিও তারা এদিন আটক করেছিলেন। কিন্তু যাত্রী থাকায় তিনি তৃণমূল নেতার কথা না শুনে পালাতে গেলে তাকে ধরে এনে মারধোর করা হয় বলে অভিযোগ। চড় থাপ্পড়ের পাশাপাশি লাঠি দিয়েও তাকে মারধোরের অভিযোগ উঠছে। আহত জিও চালককে অন্যান্য টোটো চালকরা উদ্ধার করে বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে ভর্তি করেন। সেখানেই তিনি চিকিৎসাধীন।

সূত্রের খবর বুধবার রাত ১২ টা নাগাদ ঐ তৃণমূল নেতা বাপী চক্রবর্ত্তীর নামে বাঁকুড়া সদর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের হয়েছে। যদিও অভিযুক্ত বাপী চক্রবর্ত্তী সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করে জানান কে কি অভিযোগ করেছেন জানিনা। তবে যে সময়ের কথা বলা হচ্ছে তখন আমি মিছিলে হাঁটছিলাম। একটা দুর্ঘটনার কথা শুনেছি। আর কিছু জানিনা। কেউ অভিযোগ করতেই পারেন। আইন সবার জন্যই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here