রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড় শান্তিনিকেতন থেকে ফেরার পথে আচমকা সিঙ্গুর বিডিও অফিসে

0
58

নিজস্ব সংবাদদাতা # রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড় শান্তিনিকেতন থেকে কলকাতা ফেরার পথে আচমকা যান সিঙ্গুর বিডিও অফিসে।

সোমবাররাজ্যপাল সড়ক পথে সিঙ্গুর বিডিও অফিসে যান। কার্যত ফাঁকা বিডিও অফিসে কিছুক্ষণ কাটিয়ে তিনি কলকাতা রওনা হন।

সিঙ্গুরের বিডিও পার্থ বন্দ্যোপাধ্যায় অফিসে ছিলেন না। তিনি ছুটিতে । জয়েন্ট বিডিও বা অন্য কোনও সরকারি আধিকারিক ছিলেন না। সাধারণ দুজন কর্মচারী ছিলেন। তাঁরা রাজ্যপালকে চা দিয়ে আপ্যায়ন করেন। তাঁদের কাছে রাজ্যপাল জানতে চান যে, কথা বলার মতো কেউ আছেন কিনা? ওই দুই কর্মী আমতা আমতা করতে থাকেন।

প্রায় ৪০ মিনিট রাজ্যপাল তিনি বিডিও অফিসে ছিলেন। চলে যাওয়ার আগে তিনি সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন। সেই সময় স্থানীয় কয়েকজন বাসিন্দা ও কয়েকজন বিজেপি কর্মী রাজ্যপালের কাছে সিঙ্গুরে শিল্প গড়ার দাবি জানান।

তাঁরা রাজ্যপালকে বলেন, সিঙ্গুরে আজও কিছুই হল না। জমিদাতারা আজ অন্ধকারে। তাঁদের কোনও রুটি-রুজি নেই। এই কথা শুনে রাজ্যপাল তাঁদের বলেন, সিঙ্গুর নিয়ে অনেক লড়াই হয়েছে। ভাল করে বিষয়টি নিয়ে স্টাডি করে তবেই মন্তব্য করব।

সোমবার শান্তিনিকেতনে সমাবর্তন উৎসব শেষে রাষ্ট্রপতি ও রাজ্যপাল হেলিকপ্টারে অন্ডালে নামেন। রাষ্ট্রপতি বিমানে দিল্লি রওনা দেন। রাজ্যপাল সড়কপথে আসেন দুর্গাপুর ইস্পাত কারখানার অতিথিশালায়। সেখানে তাঁকে গার্ড অব অনার দেওয়া হয় পুলিশের পক্ষ থেকে। এই অতিথিশালায় মধ্যাহ্নভোজন সারেন রাজ্যপাল।
সেখান থেকে সড়ক পথে তিনি সিঙ্গুর বিডিও অফিসে আসেন।

রাজ্যপালের আচমকা এই সিঙ্গুর সফর নিয়ে বিদ্যুৎমন্ত্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায় বলেন, আমরা রাজ্যপালের পদকে শ্রদ্ধা করি। তবে মাঝে মাঝে মনে হচ্ছে উনি এক্তিয়ার ছাড়িয়ে যাচ্ছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here