পুলিশের অতিসক্রিয়তায় “গোলাপি” নার্স দিদিদের ধর্মতলা থেকে স্বাস্থ্য ভবনে গিয়ে স্মারকলিপি পেশ করা সম্ভব হল না

0
2939

মদনমোহন সামন্ত, ৮ আগস্ট , কলকাতা :রাজ‍্যের উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রগুলিতে ANM(R) কর্মরত চিকিৎসা পরিষেবা প্রদানকারী সাড়ে দশ হাজার “গোলাপি” নার্স দিদিরা দীর্ঘদিন ধরে বঞ্চনার শিকার হয়ে চলেছেন বলে দাবি করেছেন।

বেতন বৃদ্ধি, পদোন্নতি সহ বিভিন্ন দাবি আদায়ের লক্ষ্যে বৃহস্পতিবার নিম্নচাপের বৃষ্টির ভ্রূকুটি উপেক্ষা করেও সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত ধর্মতলায় রানি রাসমণি রোডে অবস্থান বিক্ষোভে শামিল হয়েছিলেন সমস্ত জেলা থেকে আসা কয়েক হাজার বঞ্চিত নার্স দিদিরা।

অল ওয়েস্ট বেঙ্গল হেলথ অ্যাসিস্ট্যান্ট (ফিমেল) অ্যান্ড হেলথ সুপারভাইজার (ফিমেল) ওয়ার্কার্স অ্যাসোসিয়েশনের জয়েন্ট ফোরামের উদ্যোগে ওয়েস্ট বেঙ্গল অক্সিলিয়ারি নার্সিং মিডওয়াইফারি রিভাইজড এমপ্লয়িজ সোসাইটি এবং ওয়েস্ট বেঙ্গল মাল্টিপারপাস ফিমেল হেলথ ওয়ার্কার অ্যাসোসিয়েশন বিক্ষোভ সমাবেশটির আয়োজক ছিলেন।

বিক্ষোভ সমাবেশ শেষে তারা বিধাননগরে স্বাস্থ্য ভবনে স্বাস্থ্য দপ্তরের মুখ্য সচিবের কাছে তাদের দাবি সম্বলিত স্মারকলিপি পেশ করতে যাওয়ার কর্মসূচি রেখেছিলেন। স্মারকলিপিতে তারা এও উল্লেখ করেছিলেন যে, বৃহস্পতিবার ৮ আগস্ট-এর মধ্যে তাদের দাবি না মানা হলে তারা স্বাস্থ্য ভবনের সামনে ধর্নায় বসবেন। এমন কি, সেই কর্মসূচি অনশনের দিকেও মোড় নিতে পারে। স্মারকলিপিতে তারা জানিয়েছিলেন, তারা ANM(R) পাস করা হেলথ অ্যাসিস্ট্যান্ট (ফিমেল) এবং হেলথ অ্যাসিস্ট্যান্ট সুপারভাইজার (ফিমেল)। তারা বহুবার লিখিতভাবে তাদের দাবি জানিয়েছেন। এমনকি, যৌথভাবে বৈঠকেও বসেছেন। তবুও তারা আজ পর্যন্ত সন্তোষজনক সাড়া পাননি। তাদের মূল তিনটি দাবি — ১) পে স্কেল-এর পরিবর্তন। পি বি ৩ — ৭,১০০ থেকে ৩৭,৬০০ + গ্রেড পে ৪,১০০। ২)গ্রেডেশনে বিভাগীয় পদোন্নতি, নার্সিং ক্যাডারের সমস্ত রকম সুযোগ সুবিধা, নার্সিং-এর মূলস্রোত থেকে তাদের বিচ্ছিন্ন না করার আবেদন। HA – HS(F) – PHN- Sr. PHN – Sub PHN – DPHN । ৩)ANM ক্যারিয়ার পাথ লাগু করা এবং তাদের জন্য CHO পদ সংরক্ষণ করা (অবশ্যই উপযুক্ত প্রশিক্ষণ সাপেক্ষে)। তারা তাদের স্মারকলিপির কপি একইসঙ্গে পাঠাতে চেয়েছিলেন রাজ্যপাল, মুখ্যমন্ত্রী, স্বাস্থ্য অধিকর্তা এবং যুগ্ম স্বাস্থ্য অধিকর্তা (নার্সিং)কেও। কিন্তু কলকাতা পুলিশের অসহযোগিতায় তারা রানি রাসমণি রোডের বিক্ষোভ সমাবেশস্থল থেকে স্বাস্থ্য ভবনের দিকে যেতেই পারেন নি। রানি রাসমণি রোডে তাদের মঞ্চ খুলে নিতে বাধ্য করা হয়। তারা ওখানেই ধর্নায় বসবেন জানালে পুলিশের পক্ষ থেকে তাদের জানানো হয় আগামীকাল ওখানে অন্য কর্মসূচি থাকায় তাদের ওখানে ধর্নায় বসতে দেওয়া যাবে না। তাছাড়া ওখানে ১৪৪ ধারা জারি থাকাতে ওখানে থাকা যাবে না। ছোট ছোট দলে ভাগ করে পুলিশ “গোলাপি” নার্সিং দিদিদের বিভিন্ন বাসে তুলে দিয়ে ধর্মতলা থেকে সরিয়ে দেওয়ার ব্যবস্থা করে। রাত্রি সাড়ে আটটাতেও দেখা যায় তখনও প্রায় ৩০০ জন নার্সিং দিদিরা ধর্মতলায় পুলিশের ঘেরাটোপের মধ্যে আটকে রয়েছেন। তখনও পুলিশ চেষ্টা চালাচ্ছে তাদের বাসে তুলে দিয়ে ধর্মতলা চত্বর থেকে সরিয়ে দেওয়ার। ফলে স্বাস্থ্য ভবনে তাদের স্মারকলিপি দিতে যাওয়া এবং ধর্না ও অনশন কর্মসূচি পালনের কথা থাকলেও প্রশাসনিক সক্রিয়তায় নার্সদের দাবির প্রতি কর্ণপাত না করে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেওয়া হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here