তারাশঙ্কর গুপ্ত বাঁকুড়া: ফের প্রকাশ্যে এল জঙ্গল মহলে তৃণমূলের গোষ্ঠী দ্বন্দ্ব। সামনেই মুখ্যমন্ত্রীর জেলা সফর।তার আগে ফের গোষ্ঠী দ্বন্দ্ব মাথা চাড়া দিল বাঁকুড়ায়। পঞ্চায়েত সমিতির কর্মাধ্যক্ষ নির্বাচনকে ঘিরে চরম গন্ডগোল বাধল বাঁকুড়ার রাইপুরে।

তৃণমূলের বিবদমান দুই গোষ্ঠীর কোন্দলের জেরে আটকে গেল কর্মাধ্যক্ষ নির্বাচন। এই ঘটনায় সকাল থেকে ব্লক অফিসের ভীতরে তালাবন্দী বিডিও সঞ্জীব দাস ও এলাকার তৃণমূল বীরেন্দ্রনাথ টুডু। এমনকি তালাবন্দী সভাপতি সুলেখা মাহাতো, মহিলা জনপ্রতিনিধি সহ কয়েক জন গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধানও।

২৯ আসনের রাইপুর পঞ্চায়েত সমিতিতে ২০ টি আসনে জিতে ক্ষমতা ধরে রাখে শাসক দল তৃণমূল। সংখ্যাগরিষ্ট তৃণমূলের তরফে সভাপতি নির্বাচিত হন দলের প্রাক্তন ব্লক সভাপতি সুলেখা মাহাতো। সহ সভাপতি রাজকুমার সিংহ।ঠিক ছিল শনিবার এই পঞ্চায়েত সমিতির ৬ জন কর্মাধ্যক্ষ নির্বাচন হবে ।

সূত্রের খবর, বিধায়ক বীরেন্দ্রনাথ টুডু ও সহ সভাপতি রাজকুমার সিংহের সঙ্গে তৃণমূল নেতা পরিমল মাহাতো, গণেশ মাহাতোদের লড়াই দীর্ঘ দিনের। এদিন বিডিও সঞ্জীব দাসের সহায়তায় বিধায়ক বীরেন্দ্রনাথ টুডু-সহ সভাপতি রাজকুমার সিংহ তাঁদের গোষ্ঠীর লোকেদের পঞ্চায়েত সমিতির কর্মাধ্যক্ষ পদে বসানো প্রায় পাকা করে ফেলেন।

এই ঘটনার প্রতিবাদ জানান পরিমল মাহাতো, গণেশ মাহাতো গোষ্ঠীর লোক জন। বিডিওর বিরুদ্ধে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ তোলেন তারা। এই ঘটনায় এলাকার পরিবেশ উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। প্রতিবাদে তৃণমূলের গণেশ-পরিমল গোষ্ঠীর লোকজন মিলে বিডিও, বিধায়ককে তালাবন্দী করে রাখেন। এমনকি আটকে আছেন সভাপতি সুলেখা মাহাতোও।

তৃণমূল নেতা গণেশ মাহাতো বলেন, জঙ্গল মহলের আদিবাসীদের ব্যবহার করে দলের ‘এক শ্রেণীর দালাল’ আদিবাসীদের উপর অত্যাচার করছে। আবার সুকৌশলে তারাই তৃণমূলকে নষ্ট করার চক্রান্ত করছে।

এই ঘটনার প্রেক্ষিতে তৃণমূল জেলা নেতৃত্বের একটা অংশ জঙ্গল মহলকে ফের অশান্ত করার চেষ্টা করছে বলে তিনি সরাসরি অভিযোগ করেন। তিনি আরো বলেন, রাইপুর এলাকায় যেভাবে রাজনীতি চলছে তাতে জঙ্গল মহল অশান্ত হয়ে উঠতে পারে’।

এই ঘটনায় ফের জেলানেতৃত্বের একাংশকে দায়ী করে দল নেত্রীর হস্তক্ষেপ দাবী করেন। এদিনের ঘটনায় সরাসরি বিডিওকে দায়ী করে তিনি বলেন, তিনি চাইছেন যাতে কর্মাধ্যক্ষ নির্বাচন না হয়। তাহলে তিনি নিজের মতো আমলাতান্ত্রিক পদ্ধতিতে পঞ্চায়েত সমিতি পরিচালনা করবেন।

যদিও বিডিও সঞ্জীব দাস সংবাদমাধ্যমকে সম্পূর্ণ এড়িয়ে গেছেন । কোন মন্তব্য করেননি তিনি । গণেশ-পরিমল গোষ্ঠীর সদস্যরা বিডিও এবং বিধায়কের বিরুদ্ধে হাতে লেখা পোষ্টার নিয়ে বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন। বিশাল পুলিশ বাহিনী ঘটনাস্থলে হাজির রয়েছে। তৃণমূল জেলা নেতৃত্বেরও কোন প্রতিক্রিয়া মেলেনি ।এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা রয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here