১০০ দিনের কাজে দুর্নীতি  কার স্বার্থে # জামগ্রাম-মণ্ডলাই গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান অমিত ঘোষ জবাব দাও # হুগলির পান্ডুয়ায়  ১০০ দিনের কাজ নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগে গ্রামে পোস্টার

0
45

নিজস্ব সংবাদদাতা # ১০০ দিনের কাজে দুর্নীতি  কার স্বার্থে, জামগ্রাম মণ্ডলাই গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান অমিত ঘোষ জবাব দাওহু। হুগলির পান্ডুয়ার  ১০০ দিনের কাজ নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগে পোস্টার ।

কাজ না করেও অ্যাকাউন্টে টাকা ঢুকছে জব কার্ড হোল্ডারের । সেইসব দুর্নীতি নিয়ে সরব হয়েছেন খোদ তৃণমূল পঞ্চায়েত সদস্য ।

সেই সঙ্গে পঞ্চায়েত প্রধানের বিরুদ্ধে পোস্টার পড়েছে  সোমড়াগোরীর জামগ্রামে ।

পোস্টারে লেখা, সোমড়াগোরীতে ১০০ দিনের কাজে দুর্নীতি করছে কার স্বার্থে, জামগ্রাম মণ্ডলাই গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান অমিত ঘোষ জবাব দাও ।

পোস্টারের কথা স্বীকার  না করে তৃণমূল  সদস্য বৈশাখি মুর্মু  প্রধানের বিরুদ্ধে  ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছেন ।

অভিযোগ অস্বীকার করেছেন প্রধান অমিতবাবু ।

বিজেপি  বলেছে, কাটমানি ও দুর্নীতির জন্য তৃণমূলের অন্দরে এই কোন্দল । তবে কে বা কারা এই পোস্টার লাগিয়েছে তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে ।

পঞ্চায়েত সদস্য বৈশাখি মুর্মু বলেন, আমাকে না জানিয়ে কাজ করছে । সেই কারণে শাসকদলের কেউ পোস্টার দিতে পারে । প্রধান আমার সঙ্গে কোনওরকম আলোচনা না করে আমার এলাকায় কাজ দিয়ে দিচ্ছে । প্রশ্ন করতে গেলে প্রধান হুমকি দিচ্ছেন । কী কারণে এসব করছেন তা বুঝতে পারছি না । দুর্নীতিগ্রস্ত লোকেদের নিয়ে কাজ করতে চাইছেন প্রধান । আমাদের অনেকে জানিয়েছেন, ১০০ দিনের কাজ না করেও ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে টাকা ঢুকে যাচ্ছে । পঞ্চায়েতের কাছে অভিযোগ জানালে তাঁকে কোনও গুরুত্বই দেওয়া হয়নি ।

স্থানীয় বাসিন্দা সফিকুল বাদশা বলেন, ১০০ দিনের কাজ না করেও আমার অ্যাকাউন্টে এক হাজার ৮০০ টাকা ঢুকেছে ।  ১২ দিনের কাজের হিসেবে দেখানো হয়েছে । আমি কোনও কাজ করিনি । এই টাকা ফিরিয়ে দিতে চাই ।

পঞ্চায়েত প্রধান অমিত ঘোষ বলেন, কোনও পোস্টার পড়েছে কি না সে বিষয়ে আমার জানা নেই । পঞ্চায়েত সদস্যকে হেনস্থা করার অভিযোগ জানা নেই । তিনি যদি লিখিত কোনও অভিযোগ জানান, তা আমি কর্তৃপক্ষের কাছে জানাব । তবে এক শ্রমিকের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে কাজ না করে ১০০ দিনের কাজের টাকা ঢুকেছে । এই বিষয়ে অভিযোগ জানিয়েছে সে । আমি সবটা খতিয়ে দেখব ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here