বুধবার গোপালনগরের জনসভায় তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে প্ল্যাকার্ড দেখিয়ে কর্মপ্রার্থীদের দাবি পেশ #  ভর্ৎসনা তৃণমূলনেত্রীর # আমাকে প্ল্যাকার্ড দেখিয়ে লাভ নেই # আমার মিটিংটা নষ্ট করে দিলেন

0
44

নিজস্ব সংবাদদাতা # বুধবার গোপালনগরের জনসভায় তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে প্ল্যাকার্ড দেখিয়ে দাবি পেশ।  ভর্ৎসনা তৃণমূলনেত্রীর।

মমতার  ভাষণ কিছুটা শুরু হতেই সভার সামনের দিকে প্ল্যাকার্ড হাতে নিজেদের দাবিদাওয়া জানাতে থাকেন কিছু অস্থায়ী সরকারি কর্মী।

ক্ষুব্ধ হয়ে মমতা বলেন…………..

১) আমাকে প্ল্যাকার্ড দেখিয়ে লাভ নেই।

২) আমার মিটিং নষ্ট করলেন তো।

বুধবার উত্তর ২৪ পরগনার গোপালনগরে তৃণমূলের  এদিনের জনসভা থেকেমতুয়াদের মন জয়ের চেষ্টা করেন মমতা।

ফের বহিরাগত গুন্ডা বলে বেঁধেন বিজেপিকে।

এদিন গোপালনগরে মমতা বক্তব্য রাখতে শুরু করতেই সভামঞ্চের সামনে হুড়োহুড়ি শুরু হয়।

ব্যারিকেড ভেঙে সামনের দিকে এগিয়ে আসার চেষ্টা করে জনতা।

ফলে কয়েক ভাষণ থামতে হয় মমতাকে।

পুলিশ ও উপস্থিত দলীয় কর্মীদের ভিড় সামলাতে মহিলাদের ব্যারিকেডের সামনে পাঠিয়ে দিতে বলেন।

যার জেরে প্রায় ৫ মিনিট বক্তব্য রাখা বন্ধ করতে হয় তৃণমূলনেত্রীকে।

মমতার ভাষণ কিছুটা এগোতেই সভার সামনের দিকে প্ল্যাকার্ড হাতে নিজেদের দাবিদাওয়া জানাতে থাকেন কিছু অস্থায়ী সরকারি কর্মী।

যার যেরে ক্ষুব্ধ হন মমতা।

তিনি বলেন……

১) আমাকে প্ল্যাকার্ড দেখিয়ে লাভ নেই।

২) আপনাদের দাবি মেনে ২০ দিনের কর্মদিবস ইতিমধ্যে ৪০ দিন করে দেওয়া হয়েছে।

৩) তার থেকে বেশি কিছু দাবি থাকলে দুয়ারে সরকারের ক্যাম্পে লিখিত আকারে জানান।

তাতেও থামেনি বিক্ষোভ।।।।।।।।।।

সভার শেষ পর্যন্ত নিজেদের দাবি জানিয়ে যেতে থাকেন অস্থায়ী সরকারি কর্মীরা।

ফের বিক্ষোভকারীদের ভর্ৎসনা করে মমতা বলেন………..

১) আমার দ্বারা যতটা সম্ভব আমি করে দিই।

২) আমি আইন মেনে চলি।

৩) আইনের বাইরে কোনও কাজ করতে পারি না।

৩) আপনারা আমার মিটিংটা নষ্ট করে দিলেন।

৪) কোনও দাবিদাওয়া থাকলে আমার বাড়িতে বা সরকারি দফতরে লিখিত আকারে জানাতে পারেন।

৫) কিন্তু দলীয় মঞ্চ থেকে সরকারি সুযোগ সুবিধা ঘোষণা করা যায় না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here