নিজস্ব প্রতিনিধি :  বুধবার নদীয়ার তেহট্টে রাজমহল লজে আয়োজিত বিজেপির কর্মীসভায় উপস্থিত হয়েছিলেন বিজেপির নদীয়া জেলা সভাপতি মহাদেব সরকার ।

অভিযোগ, একদিন আগে মহাদেব বাবু কোনরূপ স্থানীয় কর্মী নেতাদের সাথে আলোচনা না করে ফেসবুকের মাধ্যমে সত্য মন্ডল সভাপতি নির্বাচন করেন। এই ঘটনায় ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয় ভোটের বিজেপি সংগঠন এর অভ্যন্তরে। সেই কর্মী ক্ষোভ কে প্রশমিত করতে এদিন নদিয়া জেলা বিজেপির সভাপতি মহাদেব উপস্থিত হয়েছিলেন তেহট্টে কর্মীসভায়।

ছোট্ট ব্লকের বিজেপি জেড বি নাইন এর সভাপতি জয়ন্ত বিশ্বাসের অভিযোগ, বগুলা নদীয়া জেলা সভাপতি তথা সংসদ গৌরীশংকর দত্তের সাথে গোপন আঁতাত করে তেহট্টের বিজেপি সংগঠন কে দুর্বল করে দেয়ার কারণে মহাদেববাবু এই ধরনের দল বিরোধী কাজ করে চলেছেন। প্রথমত, দলীয় কোন নেতাকর্মীর সাথে আলোচনা না করেই তিনি মন্ডল সভাপতি পরিবর্তন করার সিদ্ধান্ত নেন। সভাপতির এই সিদ্ধান্ত মানতে নারাজ কর্মী-সমর্থকদের সাথে সভা কক্ষে অশান্তি শুরু হয় মহাদেব বাবুর, এই পরিস্থিতিতে উত্তেজিত এক বিজেপি কর্মী জেলা সভাপতি কে লক্ষ্য করে চেয়ার ছুড়ে মারলে তা লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়ে বিজেপি জেলা মোর্চার সদস্যা নেত্রী যুথিকা হালদার নামে এক মহিলার মাথায় লেগে মাথা ফেটে যায়। তাকে স্থানীয় স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিয়ে যায় বিজেপির কর্মীরা।

অভিযোগ, প্রথমে বক্তব্যের মধ্যে বিষয়টি বিবেচনা করার কথা বলল পরবর্তী সময়ে কর্মীরা যখন মহাদেব বউকে আলোচনায় বসতে বলেন সেই সময়ে মহাদেববাবু তা অস্বীকার করলে ক্ষোভে ফেটে পড়ে সভায় উপস্থিত বিজেপির কর্মী-সমর্থকেরা। অভিযোগ বর্তমান মন্ডল সভাপতি কে বাদ দিয়ে সম্পূর্ণ সংগঠনের বহির্ভূত তৃণমূলের সমর্থক এক ব্যক্তিকে সভাপতি নিয়োগ করার জন্য চক্রান্ত করছেন মহাদেব সরকার। এই পরিস্থিতিতে কর্মী সমর্থকদের সাথে পদে বৈধ শাস্তি হওয়ার কারণে তার জামা ছিঁড়ে যায় এবং জুতো ফেলে রেখে তড়িঘড়ি সভাস্থল থেকে গাড়িতে উঠে পালিয়ে যান বিজেপি নদীয়ার জেলা সভাপতি মহাদেব সরকার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here