অভিষেক ব্যানার্জি ঠিক বলেছেন # মোদীজি নে রুপিয়া ভেজা # মানে কী # বিজেপির বাবার টাকা # রাজ্যের মানুষের টাকা # # কন্যাশ্রী, সাইকেল, স্বাস্থ্যসাথীও কিন্তু আমাদের টাকাতেই # বিশিষ্ট সাংবাদিক প্রসূন আচার্য

0
50

অভিষেক ব্যানার্জি ঠিক বলেছেন। মোদী জি নে রুপিয়া ভেজা: মানে কী ? বিজেপির বাবার টাকা? রাজ্যের মানুষের টাকা। কন্যাশ্রী, সাইকেল, স্বাস্থ্যসাথীও কিন্তু আমাদের টাকাতেই

—–প্রসূন আচার্য

মেদিনীপুরের সভায় উচ্চ কন্ঠে তৃণমূলের যুব হৃদয় সম্রাট অভিষেক ব্যানার্জি বলেছেন, “বিজেপি নেতারা বলছেন, মোদীজি নে রুপিয়া ভেজা। মানে মোদী নাকি টাকা পাঠিয়েছেন। এটা কি বিজেপির বাবার টাকা? এটা মেদিনীপুরের মানুষের, বাংলার মানুষের টাকা। তাঁদের ট্যাক্সের টাকা” ।

ভাইপো একদম ঠিক বলেছেন।

কোনো সরকারি টাকাই কারও বাপের টাকা নয়। জনগণের ট্যাক্সের টাকা।

সেই টাকাই কিন্তু রাজ্যের বিভিন্ন প্রকল্পে খরচ করে বা ক্লাব, দুর্গাপুজোতে দান খয়রাত করে এমন ভাবে পিসিমণি বলেন, যেন মনে হয়……।

থাক, আর বললাম না।

আমার একটাই অনুরোধ, উল্টো দিকটা বলার সময় যেন নিজের দিকটাও খেয়াল রাখা হয়।

না হলে লোকে বলবে, নিজের বেলা আটি সুটি, পরের বেলা দাঁত কপাটি?

ঠিক যেমন এখন পার্থ চ্যাটার্জি, সৌগত রায়রা বলছেন, লোকসভার স্পিকার ওম বিড়লা সুস্থ হয়ে ফিরলেই শিশির অধিকারীর লোকসভার সদস্য পদ বাতিলের জন্য চিঠি দেবেন। ঠিকই করবেন।

ওঁরা আরও বলেছেন, পদত্যাগ না করে উনি অনৈতিক কাজ করছেন। ঠিকই বলেছেন পার্থবাবু। ভয়ঙ্কর অনৈতিক কাজ।

তৃণমূলের টিকিটে জিতে বিজেপিতে যোগদান! বর্ধমানের সুনীল মণ্ডলের ক্ষেত্রেও একই কথা খাটে।

কিন্তু ভাই যখন কংগ্রেসের ১৮ জন, বামেদের একাধিক বিধায়ক ভাঙিয়ে এনে বিধানসভা আলো করেছিলেন, তখন মনে ছিল না?

এক বারও মনে হয়নি, কাজটা অনৈতিক হচ্ছে।

তখন তো একটাই কথা শুনতাম। ওটা নাকি উন্নয়ন হচ্ছে! এতে রাজ্যের শ্রীবৃদ্ধি ঘটবে।

২০১৬ বিধানসভা ভোটের সময়ে তৃণমূল কর্মী খুনের মামলার অভিযুক্ত মানস ভূঁইয়া দল বদলে শুধু পাবলিক একাউন্ট কমিটির চেয়ারম্যানই হলেন না, ওই খুনের মামলায় বেকসুর ছাড়াও পেয়ে গেলেন। ছাড়তে হলো না বিধায়ক পদ।

শুধু দিদিমণিকে ‘মা’ বলে ডাকতে হলো। তখন নৈতিকতা কোথায় ছিল পার্থবাবু একটু জানাবেন প্লিজ!

আপনি তো পরিষদীয় মন্ত্রী ছিলেন। আজও আছেন!

C@Prasun Acharya

Plz like and share.

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here